আর্কাইভ

বেপরোয়া ও উঠতি মাস্তান রনি’র অপকর্মে অতিষ্ঠ এলাকাবাসী

নিজস্ব সংবাদদাতা ॥ বরিশালের গৌরনদী উপজেলার বাটাজোর গ্রামের উঠতি মাস্তান, বখাটে রনি সরদার ও তার বাহিনীর সদস্যরা একের পর এক অপকর্মে অতিষ্ঠ করে তুলেছে গোটা এলাকা। রনি ও তার বাহিনীর বিরুদ্ধে থানায় একাধিক মামলা ও অভিযোগ দেয়া সত্বেও পুলিশ রনি ও তার বাহিনীর সদস্যদের গ্রেফতার করতে পারেনি। এতে এলাকাবাসির মধ্যে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, এলাকায় একক আধিপত্য বিস্তারের জন্য বাটাজোর গ্রামের ব্যবসায়ী ইউনুস সরদারের পুত্র ও উঠতি মাস্তান রনি সরদার (২১) নিজের ‘রনি বাহিনী’ নামেই একটি দল গঠন করে। এলাকায় বিভিন্ন ধরনের অপকর্ম থেকে শুরু করে স্কুল-কলেজ পড়ুয়া ছাত্রীদের উত্যক্তসহ বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে রনি ও তার বাহিনীর সদস্যদের বিরুদ্ধে।

জানা গেছে, আধিপত্য বিস্তারের জন্য রনি ও তার বাহিনীর ক্যাডাররা অশ্বিনী কুমার মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থী হৃদয় ওরফে বেল্লাল হাওলাদারকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। বাটাজোর গ্রামের মাছ ব্যবসায়ী সেলিম হাওলাদারের পুত্র ও এসএসসি পরীক্ষার্থী বেল্লাল হাওলাদারকে স্থানীয়রা মুর্মুর্ষ অবস্থায় গৌরনদী হাসপাতালে ভর্তি করেছে। এ ঘটনায় গত রবিবার (৮ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় গৌরনদী থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। এরপূর্বে রনি ও তার বাহিনীর অন্যতম সদস্য সোহেল পাটোয়ারী বাটাজোর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান এইচ.এম সামচুল হক হাওলাদারের বসত ঘরে হামলা চালিয়ে ভাংচুর ও লুটপাট করে। ওই মামলার প্রধান আসামি হচ্ছে রনি সরদার।

গত ২৮ ডিসেম্বর তুচ্ছ ঘটনার জেরধরে বাটাজোর বন্দরে বসে রনি ও তার সহযোগীরা দু’দফা হামলা চালিয়ে আহত করে স্থানীয় পার্থ হালদারকে। একইদিন পশ্চিম চন্দ্রহার গ্রামের কালাম সরদারের পুত্র জাহিদ সরদারকে পিটিয়ে আহত করে রনি ও তার ক্যাডররা। এছাড়াও রনি ও তার বাহিনীর সদস্যদের বিরুদ্ধে ওই এলাকায় বিস্তার অভিযোগ রয়েছে। এসব ঘটনায় থানায় পৃথক ভাবে মামলা ও অভিযোগ দেয়া সত্বেও রনি ও তার সহযোগীদের পুলিশ গ্রেফতার করতে না পারায় তারা আরো বেপরোয়া হয়ে ওঠে।

স্থানীয়রা জরুরি ভিত্তিতে উঠতি মাস্তান রনি ও তার বাহিনীর ক্যাডারদের  গ্রেফতারপূর্বক দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি দাবিতে প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

আরও পড়ুন

মন্তব্য করুন

Back to top button
Translate »