আর্কাইভ

কনষ্টেবল থেকে এএসপি – এ যেন বিরল দৃষ্টান্ত

খোকন আহম্মেদ হীরা, গৌরনদী ॥ সততা ও কঠোর পরিশ্রম মানুষকে যে উন্নত শিখরে নিয়ে যেতে পারে, তারই এক বিড়ল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন বরিশালের আগৈলঝাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি বীর মুক্তিযোদ্ধা অশোক কুমার নন্দি। তিনি দেশ সেবায় পুলিশ বাহিনীতে কনষ্টেবল হিসেবে যোগদান করে সততা ও কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে পর্যায়ক্রমে সহকারি পুলিশ সুপার (এএসপি) হিসেবে পদোন্নতি পেয়েছেন। এ যেন অনেকটা সিনেমার গল্প কাহিনীর মতোই। গত ২২ মে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রনালয়ের এক প্রজ্ঞাপনে সততা, ন্যায় ও কঠোর পরিশ্রমের পুরস্কার হিসেবে তাকে (ওসি অশোক কুমার নন্দিকে) এএসপি হিসেবে পদোন্নতি করা হয়।

জানা গেছে, পাবনা জেলার বেড়া উপজেলার জাতসাখিনী গ্রামের তারিনীকান্ত নন্দী ও কুসুম রানী নন্দির ঘর আলোকিত করে ১৯৫৪ সনের ৪ মার্চ এ ধরায় আসেন অশোক কুমার নন্দি। পরে একে একে প্রাইমারি স্কুল পেরিয়ে হাইস্কুলে পড়াশুনা শেষ করে ১৯৬৯ সনে তিনি এসএসসি পাশ করেন। দেশে যুদ্ধ শুরুর পর তিনি দেশ মাতৃকার টানে ভারতে মুক্তিযুদ্ধের প্রশিক্ষণ নিয়ে পাক সেনাদের বিরুদ্ধে একাধিক সম্মুখ যুদ্ধে সক্রিয় ভূমিকা পালন করেন।

১৯৭৫ সনের ১০ জানুয়ারি তিনি (অশোক কুমার নন্দি) দেশ সেবায় পুলিশ বাহিনীতে কনষ্টেবল হিসেবে যোগদান করেন। নিজের কর্মদক্ষতা, সততা, কঠোর পরিশ্রম ও কৌশলের কারনে ১৯৮১ সনে তিনি কনষ্টেবল থেকে এএসআই, ১৯৮৩ সনে এসআই ও ১৯৯৫ সনে ওসি হিসেবে দ্রুত পদোন্নতি লাভ করেন। সর্বশেষ ২০১২ সনের ২২ মে এ চৌকস পুলিশ অফিসারের নিজ কর্মগুনে ওসি থেকে সহকারি পুলিশ সুপার (এএসপি) হিসেবে পদোন্নতি লাভ করেছেন। স্ত্রী সিমা রানী নন্দি, পুত্র অলোক কুমার নন্দি ও দিবাকর নন্দি রানাকে নিয়েই সুখের সংসার ছিলো তার। কিন্তু বিধিবাম; ২০১০ সনের ৬ অক্টোবর চিকিৎসকের ভুল চিকিৎসায় তার বড়পুত্র অলোক কুমার নন্দি ইহলোক ত্যাগ করেন। ছোট পুত্র দিবাকর নন্দি রানা লন্ডন থেকে উচ্চ শিক্ষা শেষ করে সেখানেই কর্মরত রয়েছেন। সহকারি পুলিশ সুপার (এএসপি) অশোক কুমার নন্দি জানান, যতোদিন এ ধরায় বেঁচে আছি, ততোদিনই দেশ সেবায় নিজেকে জড়িয়ে রাখবো। এ জন্য তিনি সকলের সহযোগীতা ও দোয়া কামনা করেছেন।

আরও পড়ুন

আরও দেখুন...
Close
Back to top button
Translate »