আর্কাইভ

বরিশালে বন্ধ হচ্ছেনা নদীতে মাছ শিকার – ২৭ জেলের কারাদন্ড

নিজস্ব সংবাদদাতা ॥ ইলিশের প্রজনন মৌসুম উপলক্ষে গত ২৫ অক্টোবর থেকে আগামী ৫ অক্টোবর পর্যন্ত নদীতে সকল ধরনের মাছ শিকারের ওপর ১১ দিনের নিষেধাজ্ঞা জারি করা হলেও তার কোন প্রভাব পরেনি নদী বেষ্টিত বরিশালের মেঘনা ও জয়ন্তী নদীতে। সরকারী মৎস্য বিভাগের নিষেধাজ্ঞাকে বৃদ্ধাঅঙ্গুলি দেখিয়ে এখানকার একশ্রেনীর অধিক মুনাফালোভী জেলেরা গভীর রাতে নদীতে মাছ ধরার কাজ অব্যাহত রেখেছে। ফলে গত ছয়দিনে পুলিশ সদস্যরা বরিশালের মুলাদীর জয়ন্তী নদী, মেহেন্দীগঞ্জ ও হিজলা উপজেলার মেঘনা নদীতে পৃথক ভাবে অভিযান চালিয়ে ২৭ জন জেলেকে ও ইলিশ মাছ বিক্রির অভিযোগে একজন মাছ বিক্রেতাকে আটক করে ভ্রাম্যমান আদালতের কাছে সোর্পদ করেছে। আদালতের বিচারক আটক জেলেদের বিভিন্ন মেয়াদে কারাদন্ড ও ব্যবসায়ীকে জরিমানা করেছেন।

জানা গেছে, মুলাদী উপজেলার জয়ন্তী নদীতে শনিবার রাতের আধাঁরে মাছ শিকারের সময় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে হেলাল উদ্দিন, বেল্লাল হোসেন, জাহাঙ্গীর ও মোয়াজ্জেম নামের চারজন জেলেকে আটক করেন। এসময় তাদের কাছ থেকে ৩০ কেজি ইলিশ মাছ ও নদী থেকে ১’শ মিটার জাল উদ্ধার করা হয়। মুলাদী থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) গোলাম মোস্তফা জানান, আটককৃতদের গতকাল রবিবার সকালে ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও মুলাদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মোস্তাফিজুর রহমানের আদালতে সোর্পদ করা হয়। তিনি আটক চার জেলেকেই এক মাস করে বিনাশ্রম কারাদন্ডের রায় ঘোষনা করেছেন। সাজা পরোয়ানা পর আটক জেলেদের বরিশাল কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়েছে। একইদিন মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার মেঘনা নদীতে মাছ ধরার সময় পুলিশের অভিযানে আটক ১৩ জন জেলের প্রত্যেককে ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড ও পাঁচশ টাকা করে জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও মেহেন্দীগঞ্জ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ মমিনউদ্দিন। একই অপরাধে গত ২৯ সেপ্টেম্বর একই নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ছয় জেলেকে জেল ও জরিমানা করেছেন। ওইদির দুপুর বারোটার দিকে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ মমিন উদ্দিন আটক ৪ জেলেকে ছয় মাসের ও দুই জেলেকে দু’মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড এবং প্রত্যেককে পাঁচ’শ টাকা করে জরিমানা করেন। এরপূর্বে গত ২৫ সেপ্টেম্বর বিকেলে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ইলিশ মাছ শিকার ও বিক্রির অভিযোগে হিজলা উপজেলার নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ জাকির হোসেন আটক চার জেলেকে একমাস করে কারাদন্ডের রায় ও ইলিশ মাছ বিক্রিব অভিযোগে এক জেলেকে জরিমানা করেছেন। তারা হলেন হিজলার বরজালিয়া গ্রামের জেলে খোরশেদ ঢালী, লক্ষিপুর গ্রামের ইউসুফ, মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার পূর্ব হন্নি গ্রামের আবু বক্কর ও হোগলতুরি গ্রামের বাছেদ আকন। ইলিশ মাছ বিক্রির অভিযোগে হিজলা উপজেলার বরজালিয়া গ্রামের আল-আমিন সরদারকে দুই হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে সাতদিনের কারাদন্ডের রায় ঘোষনা করা হয়।

বরিশাল জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ অহিদুজ্জামান জানান, এসব অধিক মুনাফালোভী জেলেদের জন্যই প্রজনন মৌসুমে মা ইলিশ নির্বিঘেœ ডিম ছাড়তে পারেনা। ফলে ইলিশের বংশ বিস্তার ব্যহৃত হয়ে পরবর্তী বছরের ভরা মৌসুমেও নদীতে ইলিশের আকাল দেখা দেয়।

আরও পড়ুন

মন্তব্য করুন

Back to top button
Translate »