আর্কাইভ

উজিরপুরে আইনশৃঙ্খলার চরম অবনতি

উজিরপুর সংবাদদাতা ॥ উজিরপুর উপজেলার আইন শৃঙ্খলার অবনতির কারনে মাদক ব্যবসা, মাদক সেবন, জুয়ার আসর, বাল্য বিবাহ, অপহরণ, বিভিন্ন দলের নেতা কর্মিরা ঈদের শুভেচ্ছা জানাতে ব্যানার, ফেষ্টুন, পোষ্টার টানালে তা ছিড়ে ফেলা, সর্বহারাদের আনাগোনা সহ শিশু ধর্ষনের ঘটনা ঘটছে। এমনকি স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসার ছাত্রিরা যাওয়া আসার পথে ইভটিজিংয়ের শিকার হচ্ছে।

বিভিন্ন এলাকায় হাত বাড়ালেই মাদক দ্রব্য পাওয়া যাচ্ছে। মাদক ব্যবসায়িদের বিরুদ্ধে যুব সমাজ প্রতিরোধ গড়ে তুললে মামলা দিয়ে আসামি করে পুলিশ দিয়ে হয়রানি করছে। উজিরপুরের মাদক ব্যবসা চলছে গুঠিয়া ইউনিয়নের, জল্লা ইউনিয়ন, বড়াকোঠা ইউনিয়ন, বামরাইল ইউনিয়নের হস্তিসুন্ড গ্রামের মৃত এস্কেন্দার সিকদার এর পুত্র মন্নান সিকদার ও আঠিপাড়া গ্রামের ফায়জুল হাওলাদার, সানুহার, খোলনা, ঈদগাহ মার্কেট, এলাকায় করছে রমরমা মাদক ব্যবসা। এর পিছনে রয়েছে ঐ এলাকার ছাত্রলীগ ও ছাত্রদলের ক্যাডার বাহিনী। মন্নান সিকদারের বিরুদ্ধে ঐ এলাকার যুবসমাজ প্রতিবাদ করায় বরিশাল আদালতে ১০ জনকে আসামি করে মামলা করে। মামলাটি বর্তমানে উজিরপুর থানায় তদন্তহীন রয়েছে। মাদকদ্রব্য ক্রয় করে উজিরপুরে বিভিন্ন এলাকায় সন্ধার পরে বসে মাদক সেবিদের আসর। মাদক সেবন কারিরা মাদকের টাকা যোগান দিতে না পারলে চুরি, ছিনতাই করে থাকে। প্রতিনিয়ত চুরির ঘটনা ঘটে থাকে উজিরপুরে বিভিন্ন এলাকায়।

ঈদের শুভেচ্ছা জানাতে বিভিন্ন দলের নেতা কর্মিরা ফেষ্টুন ব্যানার টানালে তাও ছিড়ে ফেলছে সন্ত্রাসিরা। সানুহার বাসষ্টান্ড ঈদগাহ মার্কেট এলাকায় বিএনপি নেতা এ্যাডভোকেট হুমাউন কবির মঞ্জু ও ছাত্রলীগের নেতা সবুজ মোল্লা ঈদের শুভেচ্ছা জানাতে ডিজিটাল ব্যানার টানালে তা ছিড়ে ফেলা হয়েছে।

উজিরপুরের হারতা কালবিলা গ্রামের দুই সন্তানের জননী শিল্পি বেগম অপহরণ হয়েছিল। অপহরণের ১৮দিন পরে উজিরপুরের থানা পুলিশ উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছিল। বামরাইল ইউনিয়নের ধামসর গ্রামে বিভিন্ন এলাকার নামধারী সর্বহারাদের আনাগোনা রয়েছে। এই সর্বহারাদের সাথে পূর্ব ধামসর গ্রামের জাকির হাওলাদের যোগাযোগ থাকায় ঐ এলাকায় সর্বহারাদের যাতায়াত রয়েছে।

কিছুদিন ধরে উজিরপুরের বিভিন্ন এলাকায় শিশু ধর্ষনের ঘটনা ঘটছে। তিন বছরের শিশু ও ধর্ষন কারিদের হাত থেকে রেহাই পাচ্ছে না।

গত ১৪ই নভেম্বর পিতা মাতার মাঝখানে ঘুমিয়ে থাকা তিন বছরের শিশুকে তুলে নিয়ে ধর্ষন করে একটি বাগানে ফেলে রেখে যায়। বিভিন্ন এলাকার ছাত্রীরা বাড়ি থেকে ষ্কুল, কলেজ, মাদ্রাসার যাওয়া আশার পথে বখাটেদের উত্তাক্তের স্বীকার হচ্ছে।

গত ১২ নভেম্বর বামরাইল ইউনিয়নের কালিহাতা গ্রামের এক মাদ্রাসার ছাত্রিকে উত্তক্ত করার ছাত্রির পরিবার প্রতিবাদ করায় বখাটেদের হামলায় ৭জন আহত হয়। এদিকে উল্টো আহত পরিবারের বিরুদ্ধেই বখাটে উত্তাক্তকারী সবুজ ঘরামী বাদি হয়ে ছাত্রির পরিবারের ৮জনকে আসামি করে উজিরপুর থানায় মামলা দায়ের করে।

কালিহাতা গ্রামে গত ১৩ নভেম্বর গভির রাতে সিরাজ শরীফের মিল ঘরে ১৫/২০জন ধারালো দেশিও অস্ত্র সজ্জিত হয়ে মিল ঘরের টিন, দরজা কেটে ফেলে। সিরাজ শরীফ উজিরপুর থানায় জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে সাধারন ডাইরি করে। ডাইরিতে উল্লেখ রয়েছে সিরাজ শরীফ মিল ঘরে ঘুমিয়ে থাকা অবস্থায় অপরিচিত একটি দল তার মিল ঘরে হামলা চালায়।

উজিরপুরের ওটরা, সাতলা, গুঠিয়া, বামরাইলের কালিহাতা গ্রামে চলছে জুয়ার রমরমা আসর।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »