আর্কাইভ

গৌরনদীর আট শতাধিক শিক্ষার্থীর ভবিষ্যত অনিশ্চিত

বরিশালের সরকারি গৌরনদী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে ও মাহিলাড়া ডিগ্রী কলেজে একাদশ শ্রেনীতে ভর্তি বঞ্চিত প্রায় আট শতাধিক শিক্ষার্থীর ভর্তি হওয়া অনিশ্চিত হয়ে পড়ছে। এতে ওইসব শিক্ষার্থীর পড়াশুনা ব্যাহত হওয়ার আশংকা দেখা দিয়েছে।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, এবারের এস.এস.সি পরীক্ষায় উত্তীর্ন বানিজ্য বিভাগে ৪৪৪ জন, মানবিক বিভাগে ৪০৭ জন শিক্ষার্থী সরকারি গৌরনদী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে ভর্তি হওয়ার জন্য আবেদন করে। কোটা ও মেধা অনুযায়ী বানিজ্য বিভাগে ১৫০ জন ও মানবিক বিভাগে ১৫০ জন ভর্তির সুযোগ পায়। ৫৫১ জন শিক্ষার্থী ভর্তির সুযোগ থেকে বঞ্চিত হয়। ভর্তি বঞ্চিত শিক্ষার্থীরা গত ১৯ জুন কোটা বৃদ্ধি করে ভর্তির দাবিতে কলেজ ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। এসময় বিক্ষুব্দরা শিক্ষকদের অবরুদ্ধ করে ৫ টি কক্ষে তালা ঝুলিয়ে দেয়। বানিজ্য বিভাগে ভর্তি বঞ্চিত শিক্ষার্থী সাদ্দাম হোসেন, হাসানাত আহম্মেদ জানান, তারা টরকী বন্দর ভিক্টোরী মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে এবারের এস.এস.সি পরীক্ষায় উত্তীর্ন হয়ে সরকারি গৌরনদী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে একাদশ শ্রেনীতে ভর্তি হওয়ার জন্য আবেদন করে। কোটা পূরন হয়ে যাওয়ায় তাদের এখনো ভর্তি করা হয়নি। তারা অন্য কোন কলেজ থেকে ভর্তি ফরম ক্রয় না করার কারনে তাদের ভর্তি অনিশ্চিত হয়ে পড়ে। এ বছর কলেজে ভর্র্তি হতে না পাড়লে তাদের পড়াশুনা মারাত্মক ভাবে ব্যাহত হবে বলে তারা জানায়। মাহিলাড়া ডিগ্রী কলেজের মানবিক ও বানিজ্য বিভাগে ৫৯৫ জন শিক্ষার্থী বর্তির জন্য আবেদন করে। কোটা ও মেধা অনুযায়ী ৩০০ জন শিক্ষার্থী ভর্তি হলেও ২৮৫ জন শিক্ষার্থী ভর্তি থেকে বঞ্চিত হয়।
সরকারি গৌরনদী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ও মাহিলাড়া ডিগ্রী কলেজে ভর্তি বঞ্চিত ৮ শতাধিক শিক্ষার্থী কলেজে ভর্তি হওয়ার জন্য প্রতিদিন বিভিন্নস্থানে ধর্না দিচ্ছে। মাহিলাড়া ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ ফিরোজ ফোরকান আহম্মেদ জানান, কোটা অনুযায়ী ভর্তি করা সম্পন্ন হয়েছে। কোটা বৃদ্ধি করার অনুমতি পাওয়া গেলে লেট ফি দিয়ে ১০ জুলাইয়ের মধ্যে ভর্তির সুযোগ রয়েছে।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »