আর্কাইভ

গৌরনদী কসবায় সড়ক দুর্ঘটনায় ছয়জন নিহত – বাসে অগ্নিসংযোগ ও ভাংচুর

নিজস্ব সংবাদদাতা ॥ বরিশাল-ভোলা সড়কের দিনারেরপুল এলাকায় বৃহস্পতিবার সকালে যাত্রীবাহি বাস উল্টে বিএম কলেজের দু’ছাত্রসহ ৫ জন নিহত ও কমপক্ষে ৪০ জন যাত্রী আহত হয়েছে। এ ঘটনায় বিক্ষুব্ধ জনতা দুটি বাসে অগ্নিসংযোগসহ আটটি গাড়িতে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর করেছে। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ও পুলিশ সদস্যরা আগুন নেভাতে আসলে জনতা তাদের ওপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। একপর্যায়ে জনতার তোপের মুখে তারা পিছু হটতে বাধ্য হয়। সড়ক দুর্ঘটনায় কলেজ ছাত্র পুত্রের নিহতের খবর শুনে পিতাসহ দু’জন ষ্টক করে মারা গেছে। অপরদিকে বরিশাল-ঢাকা মহাসড়কের গৌরনদী কসবা নামক এলাকায় সড়ক দূর্ঘটনায় অজ্ঞাতনামা এক পাগলী নিহত হয়েছে।

জানা গেছে, বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে লাহারহাট থেকে চরকাউয়াগামী যাত্রীবাহি বাস আরমানিয়া (ঢাকা মেট্রো-জ-২৮৫১) বেপরোয়া গতিতে যাওয়ার সময় নিয়ন্ত্রন হারিয়ে রাস্তার পাশে উল্টে খাদে পড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই চরকাউয়া নয়ানি গ্রামের আব্দুল জলিল (৪৫), বিএম কলেজের মাস্টার্স শেষ বর্ষের ছাত্র মেজর (২৬), একই কলেজের সম্মান তৃতীয় বর্ষের ছাত্র মনির হোসেন (২৪), রায়পুরা গ্রামের হারুন-অর রশিদ এবং এক শিশু মারা যায়। গুরুতর আহত হয় কমপক্ষে ৪০ জন। গুরুতর আহতদের আশংকাজনক অবস্থায় শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ঘটনায় স্থানীয় বিক্ষুব্ধ জনতা দুর্ঘটনা কবলিত বাস আরমানিয়া ও পপুলার নামের আরেকটি বাসে আগুন ধরিয়ে দেয়। এছাড়াও বিক্ষুব্ধরা ৫টি ট্রাক, ৩টি মিনিট্রাকে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুরসহ পুলিশের পিকআপ ভ্যানে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছলে বিক্ষুব্ধরা লাঠিসোটা নিয়ে তাদের ধাওয়া করে। একপর্যায়ে তারা গাড়ি নিয়ে পালিয়ে যেতে বাধ্য হয়। অপরদিকে অতিরিক্ত যাত্রীবোঝাইসহ বেপরোয়া গতিতে চলাচল করার ফলে সড়ক দূর্ঘটনার অভিযোগ এনে এ ঘটনার প্রতিবাদে হাজার-হাজার এলাকাবাসী লাঠিসোটা নিয়ে বরিশাল-ভোলা সড়কের দিনারেরপুল এলাকায় অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। এতে সকল প্রকার যানচলাচল বন্ধ হয়ে যায়। সকাল ১১ টা থেকে বিকেল সাড়ে ৩টা পর্যন্ত বরিশালের সাথে ভোলাসহ ৬টি রুটের বাস চলাচল বন্ধ ছিলো। তবে সাড়ে তিনটার পর বরিশাল-ভোলা রুট ছাড়া বাকি ৫টি রুটে বাস চলাচল শুরু হয়।

নৌ-বন্দর থানার ওসি রেজাউল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে অতিরিক্ত পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনা হয়। তিনি আরো জানান, কলেজ ছাত্র ছেলে মেজর এর নিহতের খবর শুনে তার পিতা বরিশাল সদর উপজেলা সদরের বাসিন্দা ব্যবসায়ী মোশারফ হোসেন ও বোনজামাতা জামাল উদ্দিন ষ্টক করে মৃত্যুবরন করেছেন। বরিশাল সিটি করর্পোরেশনের মেয়র শওকত হোসেন হিরন, জেলা প্রশাসক মোঃ শহীদুল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এদিকে বুধবার গভীর রাতে বরিশাল-ঢাকা মহাসড়কের গৌরনদীর কসবা নামক এলাকায় অজ্ঞাতনামা গাড়ির চাঁপায় (৩০) এক পাগলী নিহত হয়েছে।

গৌরনদী কসবায় সড়ক দুর্ঘটনায় ছয়জন নিহত - বাসে অগ্নিসংযোগ ও ভাংচুর

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »