আর্কাইভ

মঠবাড়িয়ায় বাস থামিয়ে স্কুল ছাত্রীকে অপহরণ – দুই বখাটের বাবা আটক

দেবদাস মজুমদার, পিরোজপুর ॥ পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় নবম শ্রেণীর এক স্কুল ছাত্রীকে পরিবহন বাস থেকে অপহরণ করেছে সংঘবদ্ধ বখাটেরা। চলন্ত পরিবহন বাস থামিয়ে আপন ভাইয়ের সামনে থেকে ওই স্কুল ছাত্রীকে বুধবার সকালে হাবিবুর রহমান ওরফে সনেট(২১) নামে এক বখাটের নেতৃত্বে ৫/৬জন বখাটে মিলে অপহরণের করে। মেয়েটি তার আপন বড় ভাইয়ের সাথে বুধবার সকাল পৌনে নয়টার দিকে সাকুরা পরিবহন বাসে চড়ে মামার বিয়ে অনুষ্ঠানে যোগ দিতে ঢাকায় যাচ্ছিল। অপহৃত ওই স্কুল ছাত্রী মঠবাড়িয়া উপজেলার ধানীসাফা ইউনিয়নের দেবীপুর গ্রামের দুবাই প্রবাসী এমদাদুল হক হাওলাদারের মেয়ে। সে মঠবাড়িয়া পৌরশহরের কে.এম লতিফ ইনস্টিটিউশনের নবম শ্রেণীর ছাত্রী। এঘটনায় বুধবার রাতে অপহৃত স্কুল ছাত্রীর মা সুরাইয়া বেগম অপহরণের মূল হোতা মঠবাড়িয়া শহরের গয়ালীপাড়া মহল্লার বাসিন্দা বাবুল মোল্লার বখাটে ছেলে  হাবিবুর রহমান সনেটকে প্রধান আসামী করে তার সহযোগী চার জন সহ অঞ্জাতনামা আরো ৫/৬ জনকে  আসামী করে বুধবার রাতে মঠবাড়িয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। পুলিশ এঘটনায় অভিযুক্ত অপহরণকারী সনেটের  বাবা বাবুল মোল্লা   ও তার সহযোগী সাদ্দাম হোসেনের বাবা ফজলুল হককে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে। এদিকে অপহৃত ওই স্কুল ছাত্রীকে গতকাল বৃহস্পতিবার পর্যন্ত উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি।

থানা ও ভুক্তভোগী পরিবার সূত্রে জানাগেছে,মঠবাড়িয়া উপজেলার দেবীপুর গ্রামের দুবাই প্রবাসী এমদাদুলহক হাওলাদারের নবম শ্রেণী পড়ুয়া ওই স্কুল ছাত্রী মঠবাড়িয়া শহরে তার চাচা বাদশা মিয়ার বাসায় থেকে লেখা পড়া করছে। মেয়েটির পরিবারের অভিযোগ গত একবছর ধরে  মঠবাড়িয়া শহরের গয়ালীপাড়া মহল্লার বাসিন্দা বাবুল মোল্লার বখাটে ছেলে হাবিবুর রহমান সনেট মেয়েটিকে উত্যক্ত করে আসছিল। বুধবার মেয়েটি তার আপন ভাই স্কুল ছাত্র তামজিদুল ইসলাম রিংকুকে সঙ্গে নিয়ে সাকুরা পরিবহন বাসে চড়ে তাদের ছোট মামা সাইদুর রহমানের বিয়ে অনুষ্ঠানে যোগ দিতে ঢাকায় যাচ্ছিল। সকাল সাড়ে আটটার দিকে সাকুরা পরিবহন গাড়িটি ছেড়ে যাওয়ার ১৫ মিনিট পড়ে মঠবাড়িয়া-চরখালী সড়কের মাঝেরপুল নামক স্থানে বখোটে সনেট ও তার সহয়োগী ৭/৮জন মিলে পরিবহন বাসটির গতিরোধ করে। একপর্যায় বখাটেরা বাসে উঠে ওই স্কুল ছাত্রীকে জোরপূর্বক বাস থেকে নামিয়ে নেয়। মেয়েটির ভাই রিংকু বাঁধা দিতে গেলে বখাটেরা তাকে মারধর করে চারটি মটরসাইকেল যোগে মেয়েটি অপহরণ করে পালিয়ে যায়।

অপহৃত স্কুল ছাত্রীর ভাই তামজিদুল ইসলাম রিংকু অভিযোগ করে, বখাটে সনেট দীর্ঘদিন ধরে তার বোনকে স্কুলে আসা যাওয়ার পথে উত্যক্ত করে আসছিল।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মঠবাড়িয়া থানার উপ-পরিদর্শক মো. এনায়েত হোসেন জানান,এ ঘটনায় ওই স্কুল ছাত্রীর মা পাঁচজনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেছেন। দুই আসাসীর বাবাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। অপহৃতা মেয়েটিকে  উদ্ধারে ও  আসামীদের গ্রেফতারে পুলিশী অভিযান চালাচ্ছে।

আরও পড়ুন

মন্তব্য করুন

Back to top button
Translate »