আর্কাইভ

যৌতুকের দাবিতে নির্যাতিতা গৃহবধূর মৃত সন্তান প্রসব

নিজস্ব সংবাদদাতা ॥ এক লক্ষ টাকা যৌতুকের দাবিতে পাষন্ড স্বামী ও তার পরিবারের সদস্যদের নির্মম নির্যাতনের স্বীকার হয়ে হাসপাতালে শষ্যাশয়ী ছিলেন ছয় মাসের অন্তঃস্বত্তা গৃহবধূ পারভীন বেগম। অবশেষে সোমবার পারভীন বেগম একটি মৃত সন্তান প্রসব করেছে। ঘটনাটি বরিশালের উজিরপুর উপজেলার সাতলা গ্রামের।

জানা গেছে, দক্ষিণ সাতলা গ্রামের মাছ ব্যবসায়ী চাঁন মোল্লার কন্যা পারভীন বেগমকে (২২) গত তিন বছর পূর্বে উত্তর সাতলা গ্রামের ইউনুচ বালীর পুত্র নান্টু বালীর সাথে সামাজিক ভাবে বিয়ে দেয়া হয়। বিয়ের সময় বর পক্ষের দাবিকৃত যৌতুকের এক লক্ষ টাকা পরিশোধ করা হয়। সম্প্রতি সময় যৌতুক লোভী নান্টু ও তার পরিবারের লোকজনে পূর্ণরায় এক লক্ষ টাকা যৌতুকের জন্য পারভীনকে চাপ প্রয়োগ করে। এতে অসম্মতি জানালে প্রায়ই পারভীনকে মারধর করা হতো। গত ২৯ মার্চ রাতে স্বামী নান্টু বালী, দেবর লায়েক, শশুর ইউনুচ বালী, শাশুড়ি কাজলী বেগমসহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা একই দাবিকে পরিকল্পিত ভাবে গৃহবধূ পারভীন বেগমকে অমানুষিক নির্যাতন করে। এতে সে (পারভীন) জ্ঞানশূণ্য হয়ে পরেন। পরবর্তীতে পারভীনকে পাশ্ববর্তী নয়াকান্দি গ্রামের তিন রাস্তার মোড়ে ফেলে রাখা হয়। ওইদিন রাতে ইউপি চেয়ারম্যান সোহাগ মোল্লা মুর্মুর্ষ অবস্থায় পারভীন বেগমকে উদ্ধার করে উজিরপুর হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল সোমবার বিকেলে পারভীন বেগম একটি মৃত সন্তান প্রসব করে। খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা দৌলতুন্নেছা হাসপাতাল পরিদর্শন করে পারভীন বেগমের চিকিৎসার খোঁজ খবর নেন। এসময় তারা ঘটনার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ারও আশ্বাস দেন। এ ব্যাপারে সোমবার সন্ধ্যায় উজিরপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »