আর্কাইভ

আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে নেমেছে একটি চক্র

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বরিশাল জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও জাতীয় সংসদের সাবেক চীফ হুইপ আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ’র বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে নেমেছে একটি চক্র। দক্ষিণাঞ্চলের উন্নয়নকে ব্যহৃত করাই হচ্ছে ওই চক্রের প্রধান কাজ। তারই অংশ হিসেবে আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহর অনুপস্থিতিতে সাংবাদিক বন্ধুদের মাধ্যমে মিথ্যাচারের মাধ্যমে একটি জাতীয় দৈনিকে সংবাদ প্রকাশ করা হয়েছে। প্রকাশিত ওই বিভ্রান্তিকর খবরের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ করেছেন গৌরনদী ও আগৈলঝাড়া উপজেলা আওয়ামীলীগ ও তার সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা।

আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে নেমেছে একটি চক্রবুধবার গৌরনদী উপজেলা আ’লীগের সভাপতি এইচ.এম জয়নাল আবেদীন, সাধারন সম্পাদক ও পৌর মেয়র মোঃ হারিছুর রহমান হারিছ, পৌর আ’লীগের সভাপতি গোলাম মনির মিয়া, সাধারন সম্পাদক কবির হোসেন খান, মাহিলাড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগ নেতা সৈকত গুহ পিকলু, পৌর কাউন্সিলর ও যুবলীগ নেতা রেজাউল করিম টিটু, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সৈয়দ মাহবুব আলম, সাধারন সম্পাদক মোঃ নয়ন শরীফ, সরকারি গৌরনদী কলেজ ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক জুবায়ের ইসলাম সান্টু ভূঁইয়া, পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি নজরুল ইসলাম মিয়া, শ্রমিকলীগ নেতা সাহাবুল হক খান সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দরা পৃথক বিবৃতীতে উল্লেখ করেন, বরিশাল জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাবেক চীফ হুইপ আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ’র ছেলেসহ ভারত গমন ও তার স্ত্রী শাহানারা আব্দুল্লাহর বিদেশ গমন সম্পর্কে গত ২ এপ্রিল একটি দৈনিক পত্রিকায় শুধুই মিথ্যাচার করে হাসানাত ও তার পরিবারের রাজনৈতিক সুনাম ক্ষুন্ন করতে সংবাদ প্রকাশ করেছে।

বিবৃতীদাতারা আরো বলেন, হাসানাত আব্দুল্লাহ ভারতের আজমীর শরিফের একজন মুরিদান ও একনিষ্ট ভক্ত। তাছাড়া প্রধানমন্ত্রীর দু’দফায় দক্ষিনাঞ্চল সফরকে সার্থক করার জন্য তিনি মাদারীপুর ও পিরোজপুর অঞ্চলে ব্যাপক গণসংযোগ করে অসুস্থ হয়ে পরেন। তিনি চিকিৎসার জন্য পারিবারিক চাপের কারণে ভারতে গেছেন। ভারতে অবস্থানকালে তিনি আজমির শরীফের পবিত্র রওজা মোবারকও জিয়ারত করবেন। বৃহস্পতিবার মুম্বাইতে হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ শুধাংশ ভট্টাচার্য্যর কাছে তিনি চিকিৎসা নেবেন। চিকিৎসা শেষে আগামী সপ্তাহেই তার দেশে ফেরার কথা রয়েছে।

এদিকে তার স্ত্রী শাহানারা আব্দুল্লাহ তার ভারতে যাওয়ার আগেই বড় ছেলে সাদেক আব্দুল্লাহকে সাথে নিয়ে পারিবারিক কাজ ও নাতিদের দেখতে আমেরিকায় অবস্থান করছিলেন। অন্য ছেলে মঈন আব্দুল্লাহ দীর্ঘদিন যাবত মালয়েশিয়ায় থাকলেও বর্তমানে তিনি বাংলাদেশে অবস্থান করছেন। তারা যদি স্ব-পরিবারে দেশ ত্যাগ করত তবে স্বামী-স্ত্রী কিংবা ছেলেরা বিভিন্ন দেশে যেতো না? তার ছেলেও বর্তমানে দেশে অবস্থান করতো না। ’৭১ থেকে ’৭৫-এ দেশের ক্রান্তি লগ্নেও হাসানাত আব্দুল্লাহ দেশেই অবস্থান করেছিলেন। এখন দল ক্ষমতায় আর সেই সময় তার স্ব-পরিবারে বিদেশ যাওয়া বা অন্য কিছু ভাবার তো প্রশ্নই ওঠেনা। হাসানাতের রাজনৈতিক প্রতিপক্ষরা সাংবাদিকদের মিথ্যা তথ্য দিয়ে তার রাজনৈতিক ও সামাজিক সুনাম ক্ষুন্ন করার অপচেষ্টা করছেন মাত্র। প্রকাশিত সংবাদটিতে ভুয়া তথ্যের কারণে সংবাদ ও সাংবাদিকদের সম্পর্কে দল ও জনগনের মধ্যে বিভ্রান্ত দেখা দিয়েছে।

বক্তারা আশা প্রকাশ করে বলেন, বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের মাধ্যমে দেশ, জাতি, রাজনীতি ও উন্নয়নের স্বার্থের জন্য বিভ্রান্তিকর ও ভূয়া সংবাদ বর্জন করা উচিত।

একইদিন দুপুরে আগৈলঝাড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের কার্যালয়ে দলের উপজেলা শাখার সভাপতি ইউসুফ মোল্লা কর্তৃক আয়োজিত প্রেস ব্রিফিংয়ে উপস্থিত নেতৃবৃন্দরা প্রকাশিত ওই সংবাদের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন। প্রেস বিফিংয়ে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ভাইস চেয়ারম্যান জসিম সরদার, সেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি ও রাজিহার ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইলিয়াস তালুকদার, মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল হক সরদার, কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক রমনী রঞ্জন সরকার, ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি কামরুজ্জামান সেরনিয়াবাত আজাদ, ছাত্রলীগ নেতা আবু সালেহ লিটন, লিটন আব্দুল্লাহ প্রমুখ।

আরও পড়ুন

মন্তব্য করুন

Back to top button
Translate »