আর্কাইভ

বাকেরগঞ্জে সংখ্যালঘুর জমি দখল করে বাসষ্ট্যান্ড ও বাজারের স্থাপনা নির্মাণ

দানিসুর রহমান লিমন, বাকেরগঞ্জ ॥  আদালতের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে পৌর মেয়র কর্তৃক এক সংখ্যালঘু পরিবারের প্রায় তিন কোটি টাকা মূল্যের জমি দখল করে বাসষ্ট্যান্ড ও বাজারের স্থাপনা নির্মান করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। নির্মান কাজে বাঁধা দিতে গেলে ওই সংখ্যালঘু পরিবারকে বিভিন্ন ধরনের হুমকি দেয়া হয়েছে। ঘটনাটি বরিশালের বাকেরগঞ্জ পৌর এলাকার রুনসী মহল্লার।

পৌর এলাকার ৩ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা গোপাল চন্দ্র সাহা অভিযোগ করেন, রুনসী মৌজার এসএ ২৯৪ নং খতিয়ানের ৭৩৫, ৭৩৬, ৭৩৮ ও ৭৪২ দাগে মোট ১ একর ১৭ শতক জমির পৈত্রিক সূত্রে মালিক তিনি ও তার তিন ভাই। গত ছয় মাস পূর্বে বাকেরগঞ্জ পৌরসভার মেয়র ও উপজেলার আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক লোকমান হোসেন ডাকুয়া ওই জমি দখল করে বালু দিয়ে ভরাট করে একাংশে কাঁচা বাজার নির্মাণ ও অপরঅংশে বাসস্ট্যান্ড নির্মাণের কাজ শুরু করেন। এ ঘটনায় তিনি (গোপাল চন্দ্র সাহা) গত ২০ জানুয়ারি বরিশাল জেলা জজ আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন (মামলা নং-৯০/১৩)। ওই মামলায় বিজ্ঞ জেলা জজ বরিশালের জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, মেয়র লোকমান হোসেন ডাকুয়া ও বাকেরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জকে কাজ বন্ধ রাখতে নির্দেশনা প্রদান করেন। একই সাথে ওই মামলার চুড়ান্ত নিস্ফতি এবং পরবর্তী নির্দেশনা না দেয়া পর্যন্ত কাজ বন্ধ রাখার জন্যও নির্দেশনা প্রদান করেন। পরবর্তীতে কিছুদিন কাজ বন্ধ রাখা হয়।

গোপাল চন্দ্র সাহা আরো অভিযোগ করেন, আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে আজ সোমবার সকাল থেকে পূর্নরায় মেয়র লোকমান হোসেন ডাকুয়ার নির্দেশে বাসস্ট্যান্ড নির্মাণের কাজ শুরু করেন ঠিকাদার মোখলেচুর রহমান, আসাদ খান ও রিপন খন্দকারের লোকজনে। এসময় গোপাল কাজের বাঁধা দিতে গেলে ঠিকাদারের লোকজন তাকে বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতিসহ হুমকি প্রদর্শন করেন। নিরুপায় হয়ে তিনি (গোপাল চন্দ্র সাহা) প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

এ ব্যাপারে মেয়র লোকমান হোসেন ডাকুয়া বলেন, আমিন দিয়ে মেপে আদালতের নিষেধাজ্ঞার বাহিরে থাকা জমিতে স্থাপনা নির্মাণের কাজ করা হচ্ছে। তবে জমিটি পৌরসভার কিনা জানতে চাইলে তিনি কোন সদূত্তর দিতে পারেননি।

বাকেরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি মোঃ নুরুল ইসলাম-পিপিএম বলেন, নিষেধাজ্ঞা থাকায় ওই জমিতে কাজ বন্ধ রাখার জন্য মেয়রকে অনুরোধ করা হলে তিনি নিষেধাজ্ঞার বাহিরে থাকা জমিতে স্থাপনা নির্মাণের কাজ করছেন বলে জানিয়েছেন।

আরও পড়ুন

মন্তব্য করুন

Back to top button
Translate »