আর্কাইভ

পীরগঞ্জে ৪৮ ঘন্টা পর লাশ মর্গে

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল, গাইবান্ধা ॥ রংপুরের পীরগঞ্জে আরেফা নামের এক গৃহবধু আত্মহত্যার ৪৮ ঘন্টার পর পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়েছে। গত সোমবার উপজেলার জয়ন্তীপুর গ্রামে এ আত্মহত্যার ঘটনা ঘটে। পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, কিছুদিন পর থেকে যৌতুক নিয়ে তাদের মধ্যে কলহ শুরু হয়। ঘটনার দিন গত সোমবার দুপুরে ওই কলহের জের ধরে শয়ন ঘরের বর্গার সাথে পরনের শাড়ী গলায় পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করে আরেফা। এনিয়ে উভয় পরিবারের মধ্যে দফায় দফায় সমঝোতা বৈঠক হলেও তা  ভেস্তে যায়। অবশেষে আরেফার চাচা রজ্জব আলী বিষয়টি পীরগঞ্জ থানা পুলিশকে জানায়। পুলিশ এরপর আরেফার লাশ উদ্ধার করে বুধবার ময়না তদন্তের জন্য রংপুর মর্গে প্রেরন করে। রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত আরেফার স্বামী পলাতক রয়েছে।এ ব্যাপারে পীরগঞ্জ থানায় ইউডি মামলা হয়েছে । উল্লেখ্য, গত ১০ দিনে পীরগঞ্জে ৫টি আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে।

সুন্দরগঞ্জে পৌর শহরের রাস্তার কাজ শুরু হয়নি

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে খানা-খন্দে ভরা পৌর শহরের রাস্তা মেরামত ও সংস্কার কাজ দীর্ঘ সময় পার হলেও কাজ শুরু হয়নি। জানা গেছে, পৌর শহরের খানা-খন্দে ভরা রাস্তাগুলোর সংস্কার ও মেরামতের জন্য গত ২০১২ সালের শেষ দিকে পৌর কর্তৃপক্ষ দরপত্র আহবান করলে বিভিন্ন ঠিকাদারী  প্রতিষ্ঠান দরপত্র জমা দেয়। শহরে প্রবেশপথ বাইপাস থেকে ডাকবাংলো পর্যন্ত ৩৪ লাখ টাকা ব্যয়ে প্রধান সড়কের মেরামত কাজ পর্বতা ইন্টারন্যাশনাল ফার্ম নামক ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান গত ১৯ জানুয়ারী পায়।দীর্ঘ ৬ মাস অতিবাহিত হলেও ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানটি কোন প্রকার কাজ না করায় খানাখন্দে ভরা সড়কটি বেহাল দশায় পরিণত হয়েছে। সড়কটি শহরে প্রবেশদার হওয়ায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে প্রতিদিন শত শত ছোট-বড় যানবাহন চলাচল করছে। সামান্য বৃষ্টি হতে না হতেই বিশেষ করে কাঁঠালতলী মোড়, সোনালী ব্যাংক চত্বর, সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয় সড়কের হাটু পানি জমে থাকে। এতে করে পথচারী, স্কুল-কলেজগামী ছাত্রছাত্রী ও যানবাহন চলাচলে বিঘœ ঘটে এবং দুর্ঘটনার শিকার হন। মেয়র না থাকায় এব্যাপারে পৌর প্রকৌশলীর সঙ্গে কথা বললে তিনি জানান, র্ঠিকাদার চুক্তিবদ্ধ না হওয়ায় এতোদিন কার্যাদেশ প্রদান করা সম্ভব হয়নি। তবে ২-১ দিনের মধ্যে কার্যাদেশ দেয়া হবে। সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে তাকে পাওয়া যায়নি।

তিস্তা নদীর ভাঁঙ্গনে কয়েক গ্রাম নদী গর্ভে বিলীন

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় তিস্তা নদী অব্যাহত ভাঁঙ্গনে শত শত বসতবাড়ী ও ফসলী জমি নদী গর্ভে বিলীন হয়েছে। ভাঁঙ্গনে আতঙ্কে রয়েছে আরও অসংখ্য পরিবার ও কয়েক গ্রামের মানুষ।জানা গেছে, উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলে আকষ্মিকভাবে নদীর পানি বৃদ্ধি  পাওয়ায় পানির স্রোত তীব্রতা বেড়ে যায়। দেখা দেয় নদী ভাঁঙ্গনের তীর্বতা। নদী ভাঁঙ্গনে এপর্যন্ত কঞ্চিবাড়ীর, ছয় ঘড়িয়া, চন্ডিপুরের বোচাগাড়ি, উজান বোচাগাড়ি, হরিপুরের কানিচরিতা, হাজারির হাট, চরিতা বাড়ী, কাশিম বাজার, কাপাসিয়ার লাল চামারসহ কয়েকটি এলাকায় শত শত বসত-বাড়ী ও হাজার হাজার  একর জমির বাড়ন্ত তোষাপাটের  ক্ষেত, সবজি ক্ষেত  নদী গর্ভে বিলীন হয়েছে। ভাঁঙ্গনের তীব্রতা অব্যাহত থাকায় অসংখ্য পরিবারের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে। তারা ঘর-বাড়ি অন্যত্র সরিয়ে নেয়ায় চেষ্টা করছে। এব্যাপারে ইউএনও আহ্সান হাবিব জানান, বিষয়টি খোঁজ নিয়ে সংশ্লিষ্ট দপ্তরে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ার তাগিদ দেয়া হবে।

উত্তরবাংলা ডটকমকে অভিনন্দন

উত্তরাঞ্চলের সব গুলো অনলাইন নিউজ পোর্টাল কে পিছনে ফেলে শীর্ষস্থান দখল করে নিওয়ায় রংপুর থেকে পরিচালিত জনপ্রিয়  নিউজ পোর্টাল উত্তরবাংলা ডটকমক পরিবারের সদস্যদেরকে গাইবান্ধা ওয়ান লাইন এ্যাশোশিয়েশনের পক্ষে থেকে এ্যাশোশিয়েশনের সভাপতি ছাদেকুল ইসলাম রুবেল ও সাধারণ সম্পাদক মাসুদার রহমান মাসুদ, সাধারণ সম্পাদক মোশফেকুর রহমান রিপন ও সাংবাদিক সংস্থার বিভাগীয় সভাপতি নুরুজ্জামান প্রধান অভিনন্দন জানিয়েছেন । তারা আরও জানান, নিউজ পোর্টালটি বর্তমানে রংপুর বিভাগের ৮ জেলার মানুষের ও প্রবাসী উত্তরাঞ্চলবাসীর মুখপাত্র হিসাবে পরিণত হওয়ায় উত্তরাঞ্চলের সার্বিক সংবাদ স্বল্প সময়ে এই ডটকমের মাধ্যমে জানতে পারছে।

 

৬ দফা দাবীতে নার্সিং কলেজে তালা

ইন্টার্নিশিপ ও মাস্টার্স কোর্স চালুসহ ৬ দফা দাবীতে রংপুর রংপুর নার্সিং কলেজে তালা ঝুলিয়ে দিয়েছে শিক্ষার্থীরা। বুধবার সকাল সাড়ে ১০ টায় শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ শেষে ক্যাম্পাসের একাডেমিক ও প্রশাসনিক ভবনে তালা ঝুলিয়ে দেয়। এসময় অধ্যক্ষসহ শিক্ষক কর্মকর্তা কর্মচারীরা আটকা পড়ে  যায়।নার্সিং পেশার মানোন্নয়নে চার বছর মেয়াদী বিএসসি ইন নার্সিং কোর্স শেষে ৬ থেকে ১ বছর মেয়াদী ইন্টার্নিশিপ চালু, মাসিক বৃত্তি ৩ হাজার টাকায় উন্নীতকরণ, মাস্টার্স কোর্সসহ উচ্চতর শিক্ষা গ্রহণের ব্যবস্থা, বিশেষ বিসিএস’এর ব্যবস্থাসহ চাকুরী নিয়োগ বিধি প্রকাশ, মেডিকেল কলেজ সমূহে পৃথক সেবা অনুষদ গঠন, ক্লিনিক্যাল প্র্যাকটিসের সময় ইউনিফরমের ওপর এ্যপ্রোণ পরিধানের অনুমতির দাবীতে গতকাল বুধবার সকালে নার্সিং ইন্সটিটিউটের শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসে প্রথমে অবস্থান ধর্মঘট করে । পরে তারা কলেজের প্রধান ফটকে তালা ঝুলিয়ে দেয়। অবস্থান ধর্মঘট চলাকালে বক্তব্য রাখেন আন্দোলন কমিটির সভাপতি রফিকুল ইসলাম, সহ সভাপতি মোস্তফা মনোয়ার, সাধারণ সম্পাদক নুরনবী সরকার, শামীমা আখতার রাবেয়া বশরী প্রমুখ।বক্তারা বলেন, দাবী আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে। কলেজে দেয়া তালা বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত বলবৎ থাকবে। বৃহস্পতিবার নগরীতে মানববন্ধন, বিক্ষোভ শেষে কলেজে তালা খুলে দেয়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।এ ব্যাপারে কলেজ অধ্যক্ষ জানান, শিক্ষার্থীদের দাবী দাওয়ার বিষয়ে কলেজের সাথে সংশ্লিষ্ট না থাকায় উপরে জানানো হয়েছে। তিনিও দাবীগুলোকে যৌক্তিক উল্লেখ করে তা বাস্তবায়নের দাবী জানান।

শিশুসদনে অনৈতিক কর্মকাণ্ডে তোলপাড়

সরকারি শিশুসদনে (বালিকা) জাহাঙ্গীর আরিফ নামে এক উপতত্ত্বাবধায়কের অনৈতিক কর্মকাণ্ডের শিকার হয়ে ১০ম শ্রেণির এক ছাত্রী এখন মানসিক বিপর্যয়ের মুখে। অতিরিক্ত ঘুমের ট্যাবলেট খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়লে সদনের অন্যান্য সদস্য ও কর্মকর্তাদের সহযোগিতায় সে হাসপাতালে ভর্তি হয়। বর্তমানে তার অবস্থা আশঙ্কামুক্ত হলেও তার ভবিষ্যত নিয়ে তার পরিবার ও সে নিজেই উদ্বিগ্ন। ঘটনাটি নিয়ে সংশ্লিষ্ট মহলে তোলপাড় সৃষ্টি হলেও সমাজসেবা অধিদপ্তর অভিযুক্ত কর্মকর্তার বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি।সূত্রে জানা গেছে, জাহাঙ্গীর আরিফ প্রধান ২০০৮ সালে ওই প্রতিষ্ঠানে উপতত্ত্বাবধায়কের দায়িত্ব গ্রহণ করেন। সে সময় থেকেই তার বিরুদ্ধে উঠতি বয়সের মেয়েদের সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্ক গড়ে তোলার অভিযোগ পাওয়া যায়।  একপর্যায়ে ৮ম শ্রেণিতে অধ্যয়নরত রোকসানার সঙ্গে তার গভীর সম্পর্ক গড়ে ওঠে। তা দৈহিক সম্পর্কে রূপ নেয়।আরিফের স্ত্রী তার সন্তানদের নিয়ে স্কুলে গেলে সেই সুযোগে মেয়েটিকে তার ঘরে নিয়ে যেতো। এ নিয়ে সদনের অন্যান্যদের মধ্যে কানাঘুষা শুরু হয়। এ পরিস্থিতিতে ২০১২ সালের শেষদিকে আরিফকে সরকারি হাইস্কুল সংলগ্ন অন্ধ শিক্ষা কার্যক্রমে বদলি করা হয়। এরপরও আরিফ ওই শিশু সদনের বর্তমান দায়িত্বরত উপতত্ত্বাবধায়ক উম্মে হাবীবা ও তার সহকর্মীদের সঙ্গে কোনো আলাপ আলোচনা না করেই সরাসরি ৪ তলায় মেয়েটির কক্ষে চলে যেতেন। এ নিয়ে সমাজসেবা অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের সঙ্গে ওই আরিফের বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করেন। কিন্তু সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এ ব্যাপারে কোনো পদক্ষেপ নেননি। সম্প্রতি এ নিয়ে সদনের অন্যান্য সদস্যের মধ্যে চরম অসন্তোষ বিরাজ করছে।তারা লিখিতভাবে বিষয়টি বর্তমান উপতত্ত্বাবধায়ককে জানায়। তিনি মেয়েটিকে তার কাছে ডেকে নিয়ে লিখিত বক্তব্য নেন।তিনি জানান, ৬ বছর বয়সে মেয়েটি শিশু সদনে ভর্তি হয়। বর্তমানে সে ১০ম শ্রেণির ছাত্রী। বান্ধবী ও অন্যান্য নিবাসীদের কানাঘুষায় লজ্জিত হয়ে সে গত ২৩ জুন মধ্যরাতে অতিরিক্ত ঘুমের ট্যাবলেট খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। হাসপাতালে নেয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে সুস্থ করে তোলেন। মেয়েটি স্থানীয় সাংবাদিক এবং নারী নেত্রীদের কাছে আরিফের সঙ্গে তার সম্পর্কের কথা স্বীকার করে। মেয়েটি জানায় তাকে বিয়ে করার প্রলোভন দেখিয়ে আরিফ তার সঙ্গে অবৈধ সম্পর্ক গড়ে তোলেন। বিষয়টি নিয়ে গত সোমবার জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় আলোচনা ওঠে। সভার সভাপতি জেলা প্রশাসক ড. কাজী আনোয়ারুল হক বিষয়টি প্রয়োজনীয় তদন্তের জন্য সমাজসেবা বিভাগের গাইবান্ধা উপপরিচালককে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে বলে জানান। তত্ত্বাবধায়কের অপরাধ প্রমাণিত হলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে সভায় সদস্যদের আশ্বস্ত করেন।বিষয়টি এখন গাইবান্ধার টক অব দ্যা টাউন। শিশু সদনের অসহায় মেয়েদের লালসায় শিকার হওয়ার ঘটনায় তারা বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছেন।জেলা বার সমিতির সাবেক সভাপতি এবং সদন সংলগ্ন এলাকার বাসিন্দা অ্যাডভোকেট সেকেন্দার আযম আনাম বলেন, অসহায় মেয়েদের সঙ্গে এ ধরনের অনৈতিক ঘটনা ঘটে থাকলে তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হওয়া দরকার।বর্তমান উপতত্ত্বাবধায়ক উম্মে হাবীবা ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন।সমাজসেবা অধিদপ্তরের উপপরিচালক সহিদুর রহমান জানান, এ ধরনের অভিযোগ ওঠা দুঃখজনক। ব্যাপারটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। আরিফের সঙ্গে মোবাইলে কথা বলেছি। তিনি ঘটনার সঙ্গে সম্পৃক্ততার কথা অস্বীকার করেছেন।

রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনে তালা

শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ ৩৭৮ জনের চাকরি স্থায়ীকরণের দাবিতে বুধবার রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনে তালা ঝুঁলিয়ে আন্দোলনে নেমেছে কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।ফলে বন্ধ হয়ে গেছে বিশ্ববিদ্যালয় সকল প্রশাসনিক কার্যক্রম। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিশ্ববিদ্যা য়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা বুধবার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে প্রশাসনিক ভবনে তালা ঝুলিয়ে দিয়ে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল করে। এরপর তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে অবস্থান নেয়।পরে সেখানে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য দেন বিশ্ববিদ্যালয় কর্মচারি ইউনিয়নের সভাপতি আতিকুজ্জামান সুমন, জাহাঙ্গীর আলমসহ অন্যান্যরা।তারা অবিলম্বে শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারিসহ ৩৭৮ জনের চাকরি স্থায়ীকরণের দাবি জানান।প্রসঙ্গত, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. আবদুল জলিল মিয়া ৩৭৮ জন শিক্ষক ও কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়োগ দেন। বর্তমানে তাদের বেতন ভাতা বন্ধ রয়েছে।এই অবস্থায় তাদের চাকরি স্থায়ীকরণের দাবিতে বুধবার আন্দোলনে নেমেছে কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।উদ্ভূত পরিস্থিতিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের নবনিযুক্ত উপাচার্য অধ্যাপক ড. একেএম নুর-উন-নবী জানিয়েছেন, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের অনুমতি ছাড়া অতিরিক্ত নিয়োগকারীদের চাকরি স্থায়ী করা সম্ভব নয়। তাই তাদের বেতনও হচ্ছে না।বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের অনুমোদন না থাকায় তাদের চাকরি স্থায়ীকরণের বিষয়ে তার কিছুই করার নেই বলেও মন্তব্য করেছেন উপাচার্য।

গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জের এক গৃহবধূর রজস্যজনকভাবে মৃত্যু হয়েছে। হত্যা না আত্ম হত্যা এ নিয়ে ব্যাপক গুঞ্জন চলছে।জানা গেছে, মঙ্গলবার গভীর রাতে উপজেলার ধোপাডাঙ্গা ইউনিয়নের পশ্চিম রাজিবপুর গ্রামের সড়ক উদ্দিনের ছেলে আবদুল মালেকের স্ত্রী জবেদা বেগম ২ সন্তানের জননীর মৃত্যু হয়। নিহতের স্বামী পরিবারের পক্ষ থেকে জানান, জবেদা বেগম আত্মহত্যা করেছেন।এলাকাবাসী জানান, রামজীবন ইউনিয়নের কাশদহ গ্রামের লুৎফর রহমানের কন্যা জবেদার সঙ্গে আবদুল মালেকের বিয়ের পর থেকে কলহ চলে আসছে। ওই রাতে জবেদার রহস্যজনক মৃত্যু হয়। গৃহবধূর এ মৃত্যুকে স্বামীর পরিবার থেকে আত্মহত্যার চেষ্টা চালানো হচ্ছে। জবেদার পিতার পরিবার থেকে হত্যা মামলার দায়ের প্রস্তুতি চলছে।ইউপি চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার এটিএম মাহবুব আলম শাহীন বলেন, স্বামীর পাশবিক নির্যাতনের ফলে জবেদা আত্মহত্যা করছে বলে তিনি শুনেছেন।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »