আর্কাইভ

গৌরনদীতে পৃথক দু’টি হামলা ও সংর্ঘষে বাড়ি ভাংচুর ও লুট ॥ ২০ জন আহত

বরিশালের গৌরনদী উপজেলার দক্ষিণ বাহাদুরপুর ও রমজানপুর গ্রামে শনিবার রাতে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধ ও তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দু’গ্র“পের মধ্যে হামলা ও সংর্ঘষে মহিলাসহ কমপক্ষে ২০ জন আহত হয়েছে। এ সময় একটি বাড়ি ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় গৌরনদী থানায় মামলা দায়ের করা হয়।
প্রত্যক্ষদর্শী, আহত ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার দক্ষিণ বাহাদুরপুর গ্রামের হামেদ ঘরামীর সাথে প্রতিবেশী সোমেদ ঘরামীর র্দীর্ঘদিন থেকে জমিজমা নিয়ে আদালতে মামলা চলে আসছে। বিরোধ মীমাংসার জন্য স্থানীয়দের সমন্ময়ে আগামি মঙ্গলবার সালিশ বৈঠকের আয়োজন করা হয়। এরইমধ্যে গত শনিবার রাত সাড়ে আটটার দিকে সোমেদ একদল ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী নিয়ে বিরোধপূর্ণ জমিতে ঘর উত্তোলন করতে যায়। এ সময় হামেদের স্ত্রী লালবরু বেগম ও পুত্র আবুল হাসান তাদের বাঁধা দিতে গেলে সন্ত্রাসীরা এলোপাথারি কুপিয়ে ও পিটিয়ে তাদের আহত করে। গুরুতর আহত লালবরু বেগম ও আবুল হাসানকে গৌরনদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় গতকাল রবিবার সকালে জামাল ঘরামী বাদি হয়ে গৌরনদী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

অপরদিকে রমজানপুর গ্রামের হোসেন আলীর স্ত্রী রহিমা বেগমের সাথে শনিবার বিকেলে একইবাড়ির আমীরের স্ত্রী বকুল বেগমের সাথে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বাকবিতন্ডা বাঁধে। এরজের ধরে ওইদিন রাতে আমির ও তার সহযোগীরা হোসেনের ঘরে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর করে ঘরের মধ্যে থাকা মূল্যবান মালামাল লুট করে নেয়। এ সময় হোসেন ও তার পরিবারের সদস্যরা বাঁধা দিতে গেলে উভয়ের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে। সংঘর্ষে মহিলাসহ কমপক্ষে ১৮ জন আহত হয়। গুরুতর আহত হোসেন আলী, রহিমা বেগম, এনামুল হক, সাহিদা বেগম, লালমন বিবি, হেমায়েত রাঢ়ী, সিদ্দিক রাঢ়ী ও মাসুদ হাসানকে গৌরনদী ও কালকিনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

আরও পড়ুন

Back to top button