আর্কাইভ

বরিশালে গৃহবধুর ইজ্জতের মূল্য মাত্র ২০ হাজার টাকা

টাকা নির্ধারণ করেছিল গ্রাম্য মাতুব্বররা। নির্যাতনের শিকার গৃহবধুকে আটকে রেখে শালিস মিমাংশার চেষ্টা চালিয়েছিল ওই এলাকার কয়েকজন প্রভাবশালী ব্যক্তি। পরে এলাকাবাসীর হস্তক্ষেপে ওই গৃহবধু কোনমতে পালিয়ে এসে বৃহস্পতিবার উজিরপুর থানায় আশ্রয় নিয়েয়ে।

জানা গেছে, উজিরপুর উপজেলার গুঠিয়ার আশোয়ার গ্রামের আহম্মদ হোসেন হাওলাদারের স্ত্রী তিন সন্তানের জননী নিলুফা বেগম (২৫) কে গত মঙ্গলবার রাতে ঘরে একা পেয়ে ঘরের বেড়া কেটে ঘরে ঢুকে একই গ্রামের লিটন ঢালী ও পান্নু ফকির জোর পূর্বক একাধিকবার ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়। ঘটনার দিন তার স্বামী আহম্মদ আলী ওই গৃহবধুর ভাই বিদেশ প্রবাসীকে আনাতে ঢাকায় গেলে ধর্ষকরা সেই সুযোগে গৃহবধুর উপর নির্যাতন চালায়। ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার জন্য ঐ এলাকার ফরিদ, কাদের মোল া, স্বপন ফকিরসহ বেশ কয়েকজন গৃহবধুকে আটকে রেখে মিমাংশার চেষ্টা চালায় এবং গৃহবধুকে ইজ্জতের মূল্য বাবদ নগদ ২০ হাজার টাকা দেয়ার প্র্স্তাব দেয়। এ ঘটনা এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয় এবং নির্যাতনের শিকার গৃহবধুর স্বামী বাড়িতে আসলে এলাকার কয়েকজন যুবকের সহযোগিতায় তাকে উদ্ধার করে থানা পুলিশের হেফাজতে দেয়। ধর্ষণের ঘটনায় গৃহবধু নিজে বাদী হয়ে দুই ধর্ষকের বিরুদ্ধে উজিরপুর থানায় মামলা দায়ের করেছে। বরিশাল সহকারী পুলিশ সুপার (সার্কেল) রবিউল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। উজিরপুর থানার ওসি সুকুমার রায় জানিয়েছেন, নির্যাতনের ঘটনায় মামলা দায়ের হয়েছে। আসামী গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »