আর্কাইভ

টরকী বন্দরের ব্যবসায়ীদের আন্দোলনের হুমকি

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ দক্ষিনাঞ্চলের সর্ব বৃহৎ ব্যবসায়ী বন্দর বরিশালের গৌরনদী পৌর এলাকার টরকী বন্দরে চাঁদার দাবিতে ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানে হামলা চালিয়ে ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম ও লুটপাটের ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়। মামলা দায়েরের পর চাঁদাবাজ সন্ত্রাসীরা  ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে পাল্টা মিথ্যে মামলা দিয়ে হয়রানি করার অভিযোগে ওই বন্দরের ব্যবসায়ীরা কঠোর আন্দোলনের হুমকি দিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার সকালে ব্যবসায়ীরা জরুরি সভা করে ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মিথ্যে মামলা প্রত্যহার না করা হলে লাগাতারভাবে ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান বন্ধসহ কঠিন আন্দোলনের হুমকি দিয়েছেন।   

সূত্রমতে, গত ২৩ আগষ্ট সন্ত্রাসীদের দাবিকৃত ৫০ হাজার টাকা চাঁদা না দেয়ায় সন্ত্রাসীরা টরকী বন্দরের ভাই ভাই অয়েল মিলের শো-রুমে হামলা চালিয়ে পিটিয়ে মিল মালিক  রুহুল আমিন সিকদারকে রক্তাক্ত জখম করে। এ সময় ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠান থেকে নগদ  ৭৮ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যাওয়া হয়। রুহুলের চিৎকারে বন্দরের পাশ্ববর্তী ব্যবসায়ীরা তাকে রক্ষায় এগিয়ে আসলে সন্ত্রাসীরা তাদের ওপরও হামলা চালায়। হামলায় অপর পাঁচ ব্যবসায়ী আহত হয়। বন্দরের ব্যবসায়ীদের মাঝে মুহুর্তের মধ্যে এ খবর ছড়িয়ে পরলে ব্যবসায়ীরা দোকানপাট বন্ধ করে হামলার প্রতিবাদে ও চাঁদাবাজ সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করেন। এ ঘটনায় ওই দিন রাতে ব্যবসায়ী রুহুল আমিন সিকদার বাদি হয়ে গৌরনদী থানায় সন্ত্রাসী রহিম তালুকদার, মিঠু, রিগ্যান, আরিফ, ওয়াসিম ওরফে ডিবি, ডাইল ফরহাদ, হিপু ও  হিরাকে আসামি করে চাঁদাবাজি, হামলা ও লুটপাটের মামলা দায়ের করেন। ব্যবসায়ী রুহুল আমিন অভিযোগ করেন, চাঁদাবাজ সন্ত্রাসীরা মামলা থেকে রেহাই পেতে উল্টো বন্দরের দশজন ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে মিথ্যে মামলা দায়ের করেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা গৌরনদী থানার উপ-পরিদর্শক (এস.আই) অসীম কুমার সিকদার বলেন, দুটি মামলারই তদন্ত চলছে। তদন্ত পূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরও পড়ুন

Back to top button