আর্কাইভ

গৌরনদীতে স্কুল শিক্ষক ফরিদ হত্যার বিচারের দাবিতে কমিটি গঠন

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ শিক্ষক ফরিদ জমাদ্দারের হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে শিক্ষক সমিতির ক্লাস বর্জন কর্মসূচীর প্রথম দিনে আজ শনিবার ওই স্কুলে গিয়ে দেখা যায়, প্রিয় শিক্ষককে হারিয়ে সহকর্মী শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা শোকে মূহ্যমান। কোমলমতি শিক্ষার্থীরা সহপাঠী ও শিক্ষকরা আবেগে আপ্লুত হয়ে একে অপরকে জড়িয়ে ধরে বিলাপ করে কাঁদছিলো। তাদের শান্তনা দেয়ার মত ভাষা কারোই ছিল না। অপরদিকে শিক্ষক ফরিদ হত্যার বিচার নিশ্চিত করতে লাগাতার আন্দোলন সফল করার লক্ষে গতকাল শনিবার সর্বস্তরের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের নিয়ে “ফরিদ হত্যার বিচারের দাবিতে সর্বদলীয় শিক্ষক সংগ্রাম কমিটি” নামে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসির সাথে কথা বলে জানা গেছে, শিক্ষক ফরিদ হত্যার প্রতিবাদ ও বিচারের দাবিতে গৌরনদী উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি ও উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক ফেডারেশন সাত দিনের কর্মসূচী ঘোষনা করেছেন। কর্মসূচীর দ্বিতীয় দিনে আজ শনিবার ১২৪টি স্কুলের শিক্ষকরা কালো ব্যাজ ধারন করে ক্লাস বর্জন  করেছেন। সকাল সাড়ে দশটা থেকে বারটা পর্যন্ত গৌরনদীর বিভিন্ন স্কুলে গিয়ে দেখা যায়, স্কুলের শিক্ষকরা বুকে কালো ব্যাজ ধারন করে লাইব্রেরীতে শোকাহত অবস্থায় বসে আছেন। এদিকে আজ শনিবার দুপুরে বরিশাল জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার  শাহ আলম শিক্ষক নেতৃবৃন্দের নিয়ে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এক মতবিনিময় সভায় মিলিত হন। সভায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন, গৌরনদী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ নুরুল ইসলাম-পিপিএম, উপজেলা শিক্ষা অফিসার গোলাম রহমান চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন। মতবিনিময় সভার শুরুতেই জেলা শিক্ষা অফিসার ক্লাস বর্জনের কর্মসূচী প্রত্যাহারের আহবান জানালে উপস্থিত শিক্ষক নেতৃবৃন্দরা ক্ষোভে ফেঁটে পড়েন।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি টি.এম আলতাফ হোসেনের সভাপতিত্বে এক সভায় শিক্ষক ফরিদ হত্যার বিচারের দাবিতে লাগাতার আন্দোলন সফল করার লক্ষে সর্বস্তরের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের নিয়ে “ফরিদ হত্যার বিচারের দাবিতে সর্বদলীয় শিক্ষক সংগ্রাম কমিটি”  নামে টি.এম আলতাফ হোসেনকে আহবায়ক, মোঃ মিজানুর রহমানকে যুগ্ম আহবায়ক করে ১৩ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করা হয়। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মোঃ মিজানুর রহমান বলেন, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটককৃত জিয়াউল হক ও সাদ্দাম সরদারকে শুক্রবার রাতে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। তিনি আরো বলেন, এজাহারভুক্ত আসামিদের গ্রেফতারের জোর প্রচেষ্ঠা চলছে।

উল্লেখ্য, পিঙ্গলাকাঠী মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক ফরিদ জমাদ্দারকে গত বৃহস্পতিবার সকালে অজ্ঞাতনামা সন্ত্রাসীরা কুপিয়ে হত্যা করে। এঘটনায় নিহতের বড়ভাই স্কুল শিক্ষক শাজ জালাল জমাদ্দার বাদি হয়ে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক নয়ন শরীফ, ছাত্রলীগ নেতা কাজল হাওলাদারসহ ৫ জনকে আসামি করে গৌরনদী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »