আর্কাইভ

বেঁদে পল্লীর এক বিধবাকে শারিরিক নির্যাতনের অভিযোগ

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ কু-প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় বরিশালের গৌরনদী পৌরসভার টরকীর চর মহল্লার স্থায়ী বেঁদে পল্লীর এক বিধবাকে শারিরিক নির্যাতন করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। বর্তমানে মামলাটি উত্তোলনের জন্য আসামি ও তাদের ভাড়াটিয়া লোকজনে বাদি ও তার পরিবারকে বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতিসহ প্রাণনাশের হুমকি অব্যাহত রেখেছে। তাদের অব্যাহত হুমকির মুখে অসহায় বিধবা ও তার নিকট আত্মীয়-স্বজনেরা এখন চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। মামলার আসামি ও তাদের ভাড়াটিয়া লোকজনদের হাত থেকে রেহাই পেতে তারা প্রসাশনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সহযোগীতা কামনা করেছেন।

বেঁদে পল্লীর বাসিন্দা ও অসহায় বিধবা সাজেদা বেগম (৩০) অভিযোগ করেন, একই পল্লীর বাসিন্দা রুহুল আমীন ঘরামির বাড়িতে বেড়াতে আসা ঝালকাঠীর কৃষ্ণকাঠী গ্রামের সামসুল হক সরদারের পুত্র আব্দুর রহিম সরদার প্রায়ই তাকে বিয়ের প্রলোভনে কু-প্রস্তাব দিয়ে আসছিলো। এতে সে রাজি না হওয়ায় তাকে বিভিন্ন ধরনের হুমকি প্রর্দশন করা হয়। তারই ধারাবাহিকতায় গত ২০ সেপ্টেম্বর রাতে রহিম সরদার তার সহযোগী সেলিম সরদার, রুহুল আমীন ও নাসির সরদার বিধবা সাজেদার একাকি ঘরে প্রবেশ করে মুখে গামছা ঢুকিয়ে জোড়পূর্বক পালরদী নদীর পাড়ে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্ঠা চালায়। এসময় সাজেদা ডাকচিৎকার শুরু করলে তাকে শারিরিক নির্যাতন করে গুরুতর আহত করা হয়। সাজেদার আত্মচিৎকারে বেঁদে পল্লীর বাসিন্দারা এগিয়ে আসলে লম্পট রহিম ও তার সহযোগীরা পালিয়ে যায়। আহত অবস্থায় সাজেদাকে উদ্ধার করে ওইদিন রাতেই গৌরনদী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ ঘটনায় সাজেদার ভাই পিন্টু সরদার বাদি হয়ে ২১ সেপ্টেম্বর গৌরনদী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। বর্তমানে আসামি ও তাদের ভাড়াটিয়া লোকজনে মামলাটি উত্তোলনের জন্য বাদি ও তার পরিবারকে বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতিসহ প্রাননাশের হুমকি অব্যাহত রেখেছে। তাদের অব্যাহত হুমকির মুখে অসহায় পরিবারের সদস্যরা এখন চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। এ ব্যাপারে তারা প্রসাশনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সহযোগীতা কামনা করেছেন।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »