আর্কাইভ

দৃষ্টি প্রতিবন্ধী সখানাথ ও তার পরিবারের লোকজন প্রানের ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ বরিশালের গৌরনদী উপজেলার পূর্ব চরশরিকল গ্রামের দৃষ্টি প্রতিবন্ধী সখানাথ তালুকদারের জমি জাল দলিলের মাধ্যমে আত্মসাতের চেষ্টা চালাচ্ছে প্রভাবশালী ভূমিদস্যুরা। ইতোমধ্যে তারা সংখ্যালঘু পরিবারের দেড় লক্ষাধিক টাকা আত্মসাতসহ তাদের  নানাভাবে হয়রানি করে আসছে। এ ব্যাপারে প্রতিবাদ করলে সখানাথকে বাড়ি ছাড়া করে ওই চক্রের লোকজন। তাদের অব্যাহত হুমকির মুখে প্রানের ভয়ে পরিবার পরিজন নিয়ে দৃষ্টি প্রতিবন্ধী সখানাথ আশ্রয় নিয়েছেন অন্যের বাড়িতে। এ ব্যাপারে তিনি প্রশসানসহ প্রধানমন্ত্রীর সহযোগীতা কামনা করছেন।

গত ৫ অক্টোবর  সখানাথ (৫৫) ও তার স্ত্রী নুপুর তালুকদার (৩০) গৌরনদী প্রেসক্লাবে হাজির হয়ে অভিযোগ করেন, চর শরিকল মৌজায় তার পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া জমির ১ একর ৪৫ শতক জমি ভিপি হওয়ার কারনে ১৯৭৮ সন থেকে গৌরনদী ভূমি অফিস থেকে তিনি ডিসিয়ার কেটে প্রতিবছর নবায়ন পূর্বক পুরোজমি ভোগদখল করে আসছেন। সর্বমোট ২ একর ৫৬ শতক জমি তার ভোগদখলে রয়েছে। ওই জমির মধ্যে রয়েছে তার বসত বাড়ি ও মনসা মন্দির।  কিন্তু ওই এলাকার ভুমিদস্যু চক্রের হোতা ও শরিকল ইউনিয়নের ওয়ার্ড বিএনপির সাধারন সম্পাদক আবু তালেব সিকদার ও তার সহযোগী আনোয়ার হাওলাদার, ছিদ্দিক সিকদার, হাসেম সিকদার, সোহরাব জমাদ্দার ২০১১ সনের প্রথম দিকে প্রতিবন্ধী সখানাথের ৪৪ শতক (ভিপির অংশ থেকে) জমি জাল দলিলের মাধ্যমে দখলের চেষ্টা চালায়। ওই চক্রের লোকজন রাতের আধারে সাখানাথের চাষ করা জমিতে ধান রোপন করে। এ সময় সখানাথ ও তার স্ত্রী বাঁধা দিতে গেলে তাদের পিটিয়ে আহত করা হয়। উল্টো ভাবে সখানাথ ও তার পক্ষের লোকজনের বিরুদ্ধে থানায় মিথ্যে অভিযোগ দায়ের করেন ভূমিদস্যুরা। সখানাথ তার দখলীয় ভিপিকৃত ১ একর ৪৫ শতক জমি চলতি বছরের শুরুতে  পুনরায় ডিসিয়ার কাটার জন্য গৌরনদী ভূমি আফিসে আবেদন করেন। একইভাবে একই জমি ডিসিয়ার কাটার জন্য আবেদন করেন আবু তালেবের ভাই হাসেম সিকদার, আনোয়ার হাওলাদার, ছিদ্দিক সিকদার ও সোহরাব জমাদ্দার। পরবর্তীতে এ ব্যাপারে সরেজমিন তদন্তের দায়িত্ব প্রদার করা হয় উপজেলা ভূমি অফিসের কানুনগোকে। তদন্তে ওই জমি সখানাতের দখলে আছে বলে প্রমানিত হয়। কিন্তু অজ্ঞাত কারনে ভূমি অফিস সখানাথের নামে ডিসিয়ার কাটেনি। পরবর্তীতে সখানাথ বরিশাল জেলা প্রশাসকের কাছে ডিসিয়ারের জন্য আবেদন করেন। জেলা প্রশাসক বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে নিস্পত্তির জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেন।

গত দু’সপ্তাহ পূর্বে পুনরায় সরেজমিনে তদন্ত করেন গৌরনদী ভূমি অফিসের কানুনগো। এ সময় উল্লেখিত ভূমিদস্যুরা সখানাথের স্ত্রীর ওপর চড়াও হয়। প্রতিবাদ করলে আবু তালেবের লোকজন মুক্তিযোদ্ধা রতন সিকদারকে (৬০) মারপিট করে গুরুতর ভাবে আহত করে। এ ব্যাপারে আবুতালেবসহ ৯ জনকে আসামি করে গৌরনদী থানায় মামলা দায়ের করা হয়।  

গত ২ আগষ্ট স্থানীয় শরিকল ক্যাম্প পুলিশের সহয়তায় গৌরনদী ভূমি অফিসের লোকজন পূনরায় তদন্তে যান। তবে তারা অদ্যবধি কোন সমাধান দেননি।

গৌরনদীর যুদ্ধকালীন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার নজরুল ইসলাম এ ব্যাপারে ক্ষোভের সাথে জানান, এলাকার কতিপয় ভূমিখোর প্রতিবন্ধী সখানাথের জমি দখলের চেষ্টা চালাচ্ছে, বিষয়টি অমানবিক। হিন্দু-বৈদ্ধ-খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সম্পাদক কালিয়া দমন গুহ বলেন, বিষয়টি নিয়ে জেলা কমিটির সাথে আলোচনা হয়েছে। আমরা কোন ক্রমেই প্রতিবন্ধী সখানাথের সম্পত্তি বেহাত হতে দেবনা। গৌরনদী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, তদন্ত করে দেখা গেছে গত ২৮ বছর ধরে উল্লেখিত সম্পত্তি প্রতিবন্ধী সখানাথ তালুকদার ডিসি আরের মাধ্যমে ভোগ দখল করে আসছে। আগামি দু’একদিনের মধ্যেই তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করা হবে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »