আর্কাইভ

আগৈলঝাড়ায় বখাটের ছুরিকাঘাতে স্কুল শিক্ষিকা হত ॥ ঘাতক গ্রেফতার

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ আগৈলঝাড়ায় স্কুল ছুটির পর বাড়ি ফেরার পথে বখাটের ছুরিকাঘাতে আজ বুধবার বিকেলে এক স্কুল শিক্ষিকা নিহত হয়েছে। পুলিশ তাৎক্ষনিক অভিযান চালিয়ে হত্যাকারী বখাটে আবুল গোমস্তাকে গ্রেফতার করেছে।

জানা গেছে, গৈলা এতিমখানা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষিকা ও গৈলা কালুপাড়া গ্রামের শাহজাহান সরদারের কন্যা শারমিন আক্তার ঝুমুকে (২২) দীর্ঘদিন থেকে নানা ধরনের উত্যক্ত করে আসছিলো পাশ্ববর্তী উত্তর শিহিপাশা গ্রামের গ্রামপুলিশ আবু গোমস্তার বখাটে পুত্র আবুল গোমস্তা (২৬)। গত এক বছর পূর্বে একই উপজেলার মাগুড়া গ্রামের সেনা সদস্য সোহেল তালুকদারের সাথে সামাজিক ভাবে ঝুমুর বিয়ে হয়। এতে বখাটে আবুল ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে। কর্মস্থলের পার্শ্বে বাবার বাড়ি হওয়ার সুবাধে ঝুমু তার বাবার বাড়িতেই বসবাস করে আসছিলো। আজ বুধবার বিকেল সাড়ে চারটার দিকে স্কুল ছুটির পর শিক্ষিকা ঝুমু তার বাবার বাড়িতে রওয়ানা হয়। পথিমধ্যে গৈলা বাদ্যকার বাড়ির সন্নিকটের ব্রিজের কাছে পৌঁছলে বখাটে আবুল গোমস্তা শিক্ষিকা ঝুমর পথরোধ করে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত করে বীরদর্পে স্থান ত্যাগ করে। এসময় ঝুমুর আত্মচিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে তাকে আগৈলঝাড়া হাসপাতালে নিয়ে আসে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকেল ৫ টার দিকে শিক্ষিকা শারমিন আক্তার ঝুমু মারা যায়।

খবর পেয়ে তাৎক্ষনিক থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে ঝটিকা অভিযান চালিয়ে আজ সন্ধ্যায় হত্যাকারী ঘাতক আবুল গোমস্তাকে গ্রেফতার করে। এ রির্পোট লেখা পর্যন্ত (সন্ধ্যা সাড়ে সাতটা) পুলিশ নিহত স্কুল শিক্ষিকার লাশ ময়নাতদন্তের জন্য থানায় নিয়ে গেছেন। এ ব্যাপারে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। বখাটের ছুরিকাঘাতে স্কুল শিক্ষিকার নিহতের খবর মুহুর্তের মধ্যে সর্বত্র ছড়িয়ে পরলে আগৈলঝাড়া ও গৌরনদী উপজেলার শিক্ষক ও শিক্ষিকারা হাসপাতাল ও থানা এলাকায় জড়ো হয়ে হত্যাকারীর ফাঁসির দাবিতে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছেন।

অপরদিকে শিক্ষিকা শারমিন আক্তার ঝুমুর হত্যাকারীর ফাঁসির দাবিতে আগামিকাল বৃহস্পতিবার আগৈলঝাড়া উপজেলার সকল প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করেছেন উপজেলা শিক্ষক সমিতির সভাপতি সোহরাব হোসেন বাবুল। অপরদিকে একই দাবিতে আজ বুধবার বিকেল, সন্ধ্যা ও রাতে কয়েক দফা বিক্ষোভ মিছিল করেছেন আগৈলঝাড়া ও গৌরনদী উপজেলার শিক্ষক-শিক্ষিকারা।

আগৈলঝাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি অশোক কুমার নন্দী বলেন, খুনী একজন, তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী হত্যায় ব্যবহৃত অস্ত্র উদ্ধারের জন্য পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। তিনি আরো বলেন, নিহত শিক্ষিকার লাশের ময়না তদন্তের জন্য বরিশাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »