আর্কাইভ

যৌন কাজ না করায় গৃহবধূকে দেশে ফেরৎ

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ গৃহকর্মীর কাজ নিয়ে বিদেশ যেয়ে আদম বেপারির খপ্পরে যৌন কাজ না করায় ১৪ দিন পর গুরুতর আহতাবস্তায় দুবাই থেকে দেশে ফিরে রেহানা বেগমের ঠাই হল হাসপাতালে। ঘটনা ধামাচাপা দিতে প্রভাবশালী মহল অপতৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে বলে রেহানার অভিযোগ।

হাসপাতালে ভর্তি রেহানা বেগম জানান, অভাব অনটনের সংসারে স্বচ্ছলতা ফিরিয়ে আনতে জীবন জীবিকার প্রয়োজনে বাবার বাড়ির পরিচয়ের সূত্র ধরে বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলার গৈলা গ্রামের জব্বার আকনের স্বামী পরিত্যাক্তা মেয়ে আদম বেপারী রিনা বেগমের সাথে ধানডোবা গ্রামের শাহ আলম হাওলাদারের স্ত্রী দুই সন্তানের জননী রেহানা বেগম (৩০) সর্বস্ব খুইয়ে ১লাখ ২৫ হাজার টাকা দিয়ে গত ৯ সেপ্টেম্বর দুবাইর উদ্দেশ্যে পারি জমায়। দুবাই পৌছে আদম বেপারী রিনার বাসায় ওঠে রেহানা। ওই দিন রাতেই রিনা স্থানীয় এক ব্যাক্তির সাথে রেহানাকে দুবাইর ২শ দেহরাম দিয়ে অসামাজিক কাজের জন্য যেতে বলে। রেহানা যেতে না চাইলে তাকে রিনা মারধর করে ঘরে তালাবদ্ধ করে রাখে। রেহানাকে প্রতিদিন মারধর ও শাররিক নির্যাতন চালাতো বলে তিনি জানান। এক পর্যায়ে রেহানার অনুনয় বিনয়ে দুবাইর স্থানীয় এক ব্যাক্তি দরজা খুলে তাকে খাবার দেয়। পরে দুবাই কর্মরত একই গ্রামের গৈলা এলাকার রিজিয়ার অনুগ্রহে ২৩ সেপ্টেম্বর মারধরে চরম অসুস্থ হয়ে দেশে ফিরে আসে রেহানা।

টাকার অভাবে চিকিৎসা করতে না পারলেও পরবর্তিতে অন্যদের সহযোগীতায় গত ৭ অক্টোবর আগৈলঝাড়া উপজেলার গৈলা হাসপাতালে ভর্তি হয়। বর্তমানে রেহানা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে। হাসপাতালে থাকা অবস্থায় আদম বেপারী চক্রের রিনার পরিবারের লোকজন ও চাচাতো ভাই সোবহান টাকা ফেরত না দেয়ার জন্য রেহানার পরিবারকে অব্যাহত চাপ ও হুমকি দিয়ে আসছে। এদিকে রেহানা স্বর্বস্ব খুইয়ে স্বামীর চাপের কারনে তার স্বামীর ঘরেও যেতে পারছেনা। এব্যাপারে রেহানা মামলা করবেন বলে জানান।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »