আর্কাইভ

খুনী আবুল বলেছে – সুযোগ পেলে আত্মহত্যা করতাম

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ বরিশালের আগৈলঝাড়ায় বখাটের ছুরিকাঘাতে নিহত শিক্ষিকা শারমিন আক্তার ঝুমু’র হত্যাকারী খুনী সিরাজুল ইসলাম আবুল গোমস্তা পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে খুনের কথা অকপটে স্বীকার করেছে। গত দু’দিন ধরে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আজ শুক্রবার পুলিশ কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে আবুলকে বরিশাল আদালতে প্রেরন করেছে।

আগৈলঝাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি অশোক কুমার নন্দি গ্রেফতারকৃত আবুলের উদ্বৃতি দিয়ে সাংবাদিকদের জানান, আবুল বলেছে-স্যার যত তারা তারি সম্ভব আমার মৃত্যুর ব্যবস্থা করুন। যদি সময় পেতাম শারমিনকে হত্যা করার পর নিজেই আত্মহত্যা করতাম। কিন্তু সেই সুযোগ আর পাইনি। এর আগেই গ্রামবাসি আমাকে আটক করে পুলিশের কাছে সোর্পদ করেছে”। ওসি আরো জানান, ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ৫ দিনের রিমান্ড চেয়ে কড়া পুলিশ পাহাড়ায় আজ শুক্রবার দুপুরে খুনী আবুলকে বরিশাল আদালতে প্রেরন করা হয়। গ্রেফতারের দু’দিন পর খুনী আবুলকে  শুক্রবার বরিশাল আদালতে নেয়ার সময় থানার বাহিরে বিক্ষুব্ধ শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা ও এলাকাবাসি আবুলের ফাঁসির দাবিতে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছেন। এসময় বিক্ষুব্ধরা আবুলকে বহনকারী পিকআপ ঘেরাও করার চেষ্ঠা করলে পুলিশ আপ্রান চেষ্ঠা চালিয়ে পরিস্থিতি শান্ত রাখে।

অপরদিকে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় শিক্ষিকা শারমিন আক্তার ঝুমু’র লাশের ময়নাতদন্ত শেষে গৈলা স্কুল মাঠে জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। জানাজার নামাজে শিক্ষিকা শারমিনের সহকর্মী, বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক সংগঠন ও সুশীল সমাজের লোকজন অংশগ্রহন করেন। জানাজা শেষে শারমিনের বাবার বাড়ি দক্ষিণ গৈলা গ্রামের পারিবারিক গোরস্তানে তাকে দাফন করা হয়। শুক্রবার বিকেলে শিক্ষিকা শারমিন আক্তার ঝুমুর কুলখানী, দোয়া-মিলাদ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শারমিনের বাবার বাড়িতে অনুষ্ঠিত দোয়া-মিলাদে স্থানীয় সংসদ সদস্যসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, শিক্ষক নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।

বখাটের ছুরিকাঘাতে শিক্ষিকা শারমিনের অকাল মৃত্যুতে গভীর শোক ও শোকার্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন জাতীয় সংসদের সাবেক চীফ হুইফ আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য এডভোকেট তালুকদার মোঃ ইউনুস-এমপি, জনতা ব্যাংকের পরিচালক এডভোকেট বলরাম পোদ্দার বাবলু, বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও জেলা উত্তর বিএনপির সাধারন সম্পাদক অধ্যাপক আকন কুদ্দুসুর রহমানসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা।

আবুল নামা :
স্থানীয় বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, আগৈলঝাড়া উপজেলার উত্তর শিহিপাশা গ্রামের মৃত আকু চৌকিদার ওরফে গোমস্তার ছয় পুত্র ও তিন কন্যার মধ্যে সিরাজুল ইসলাম আবুল হচ্ছে পঞ্চম পুত্র। ছোটবেলা থেকেই আবুল ছিলো উৎশৃংখল। এসএসসি পরীক্ষা দিয়ে ফেল করে সে পড়াশুনা বন্ধ করে দেয়। এরপর থেকেই আবুল রাস্তাঘাটে মেয়েদের উত্যক্ত করে আসছিলো। গত পাঁচ বছর পূর্বে একই গ্রামের বাবুল সরদারের কন্যা রুনুকে সে বিয়ে করে। বিবাহিত জীবনে একটি সন্তান মারা যাওয়ার পর বর্তমানে তার স্ত্রী সন্তান সম্ভবা। বিয়ের পরেও আবুলের চরিত্রের কোন পরিবর্তন হয়নি। গত ৪ বছর পূর্বে গৈলা গ্রামের হাকিম সরদারের স্কুল পড়ুয়া কন্যাকে উত্যক্ত করার কারনে তার ভাইয়েরা আবুলকে মারধর করে পুলিশে দেয়। ওই মামলায় আবুল ৩ মাস কারাভোগ করে। এছাড়াও একই অভিযোগে আরো দু’টি মামলায় সে ৭ মাস কারাভোগ করেছে।

চারিত্রিক ধারাবাহিকতায় স্কুল শিক্ষিকা শারমিনকে সে প্রেম নিবেদনসহ যৌন নির্যাতন করে আসছিলো। শারমিন এ ঘটনায় আগৈলঝাড়া থানায় গত ১১ জুলাই একটি সাধারণ ডায়েরী করেন। আবুল শারমিনকে ছাড়াও তার ছোট বোন আইরিন জাহান ইনুকে নানাধরনের উত্যক্ত করে আসছিলো। আবুলের উত্যক্তের অত্যাচারে অতিষ্ট হয়ে একপর্যায়ে বাধ্য হয়ে তার পরিবার পড়াশুনার জন্য আইরিন জাহান ইনুকে ঢাকায় পাঠিয়ে দেয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে আবুল শিক্ষিকা শারমিনের ওপর উত্যক্তের মাত্রা দিন দিন বাড়িয়ে দেয়। এক পর্যায়ে শারমিন স্থানীয় সমাজপতিদের কাছে এ ঘটনার বিচার দাবি করেন।

সেমতে, আগৈলঝাড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের আহবায়ক ইউসুফ মোল্লা, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও যুবলীগ নেতা জসিম সরদার, বিএনপি নেতা বাহাউদ্দিন মিয়া গত ৩ সেপ্টেম্বর গৈলা বাজারে বসে প্রকাশ্যে আবুলকে জুতা পেটার রায় ঘোষনা করেন। রায় কার্যকর করে আবুলের বড় ভাই মজিদ গোমস্তা। গৈলা বাজারের প্রভাতী ভবনের নিজস্ব ফ্লাটে বসবাস করতেন শিক্ষিকা শারমিন আক্তার ঝুমু। গত এক সপ্তাহ পূর্বে গৈলা বাজারের মধ্যে বসে আবুল তাকে প্রকাশ্যে লাথি মেরে ফেলে দেয়।

উল্লেখ্য, উপজেলার গৈলা ইউনিয়নের দক্ষিন গৈলা গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত ব্যাংকার সরদার মোঃ শাহজাহানের কন্যা ও রাজিহার ইউনিয়নের মাগুরা গ্রামের ইসমাইল তালুকদারের পুত্র সেনা সদস্য জসিম উদ্দিন আনোয়ার ওরফে সোহেল তালুকদারের পাঁচমাসের অন্তঃস্বত্তা স্ত্রী, পূর্ব সুজনকাঠী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা শারমিন আক্তার ঝুমু। গত বুধবার (১২ অক্টোবর) বিকেলে স্কুল থেকে পাঠদান শেষে নিজ ফ্লাটে ফেরার পথিমধ্যে গৈলা বাজারের পশ্চিম পাশের ব্রিজের কাছে পৌঁছলে পূর্ব থেকে ওৎ পেতে থাকা মধ্য শিহিপাশা গ্রামের মৃত আকু চৌকিদার ওরফে গোমস্তার বখাটে পুত্র সিরাজুল ইসলাম আবুল গোমস্তা ধারালো ছুরি দিয়ে শারমিনকে উপর্যুপরি কুপিয়ে হত্যা করে। এ ঘটনায় নিহতের পিতা শাহজাহান সরদারের বাদি হয়ে আগৈলঝাড়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »