আর্কাইভ

আগৈলঝাড়ায় তিন বোনের এক স্বামী ॥ এলাকায় তোলপাড়

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ বরিশালের আগৈলঝাড়ায় বিয়ে পাগল এক লম্পটকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার বাহাদুরপুর গ্রামের বিজয় পান্ডের পুত্র বিধান পান্ডে (৪৫) পেশায় একজন কাঠমিস্ত্রি। একই পরিবারের ৩ বোনকে বিয়ে করেছে। এছাড়াও সে আরো দুটি বিয়ে করেছে। তার মোট ১২টি সন্তান রয়েছে। মিস্ত্রির পেশার সাথে ম্যাগনেট ও কস্টি পাথরের মুর্তি ক্রয় বিক্রয়ের প্রতারনাসহ নানা ধরনের অভিযোগ রয়েছে বিধানের বিরুদ্ধে।

১৯৮০ সনে বাশাইল গ্রামের মহানন্দ মধুর কন্যা শান্তি রানীকে সে বিয়ে করে। শান্তি দুই কন্যা এক পুত্র রেখে মারা যায়। এর কিছু দিন পর বাকাল ইউনিয়নের জলিরপাড় গ্রামের অনিল হালদারের কন্যা দীপালিকে বিয়ে করে। দিপালী ১ পুত্র, ১ কন্যা সন্তান জন্ম দেয়ার পর তার মেঝ বোন রুপালীকে বড় মগরা গ্রামের রিঙ্কু মধুর নিকট বিয়ে দেয়। বিয়ের ৬ মাস যেতে না যেতেই নারী লোভী বিধান ফুসলিয়ে রুপালীকে বিয়ে করে। রুপালীর গর্ভে ১ পুত্র, ১ কন্যা সন্তান জন্ম নেয়। কিছুদিন যেতে না যেতেই বিধানের নির্যাতনে রুপালী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে। এরপর নজর পড়ে ছোট বোন স্মৃতির ওপর। নারী লোভী বিধান স্মৃতিকে ফুসলিয়ে বিয়ের করে। ওই সংসারে তার ৩ টি কন্যা সন্তান রয়েছে। এর পরেও থেমে থাকেনি বিধান। তার চাচা শশুর চিত্ত হালদারের দশম শ্রেনীতে পড়ুয়া কন্যা মিঠুকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে প্রতারনার মাধ্যমে ঢাকায় নিয়ে যায়।

আজ শুক্রবার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মিঠুর পিতা চিত্ত হালদার স্থানীয় লোকদের সহায়তায় নারী লোভী প্রতারক বিধানকে উপজেলার কোদালধোয়া এলাকা থেকে আটক করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করেন। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্ততি চলছে।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »