আর্কাইভ

খালেদা জিয়ার সম্মানে “রেজুলেশন স্পন্সর কারী” নিউজার্সি ষ্টেট সিনেটর জিম হুইলেন পুনরায় নির্বাচিত

মতিউর রহমান লিটুঃ টান টান উত্তেজনার মাঝে বিপুল ভোটে পুনরায় নির্বাচিত হলেন নিউজার্সি ষ্টেট সিনেটর মিঃ জিম হুইলেন। সততা, বন্ধু-সুলভ আচরণ, ন্যায় নিষ্ঠা আর রাজনৈতিক বিচক্ষণতাই তাঁকে পুনরায় নির্বাচিত করেছে বলে জানা গেছে। 

গতকাল ৮ই নভেম্বর অনুষ্ঠিত নিউজার্সি ষ্টেট সিনেট নির্বাচনে প্রতিপক্ষ রিপাবলিকান পার্টির ভিনস প্যালেস্টিনা কে হাড়িয়ে ডেমোক্রাট পার্টি নেতা মিঃ জিম হুইলেন বরাবরের মত আবারো দখলে নিলেন গুরুত্বপূর্ণ নিউজার্সি নির্বাচনী এলাকা "ডিসট্রিক্ট-২"।

গত কয়েক মাস যাবত সিনেটর জিম হুইলেনকে নিয়ে চলছিল ব্যাপক গুঞ্জন, হাড্ডা হাড্ডি লড়াইয়ে সম্ভাবনার কথা শোনা গেলেও গত নির্বাচনের চেয়ে অধিক ভোটে পুনরায় নির্বাচিত হয়ে অপ্রতিরোধ্য এক রাজনৈতিক নেতায় পরিণত হলেন তিনি। এবারের নির্বাচনে শতকরা ৫৪ শতাংশ ভোট পেয়েছেন সিনেটর জিম হুইলেন অপরদিকে রিপাবলিকান পার্টির ভিনস প্যালেস্টিনা পেয়েছেন শতকরা ৪৬ শতাংশ ।

নির্বাচন পরিচালনার গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে কর্মরত ছিলেন বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত ডেমোক্রাট পার্টি নেতা সোলায়মান সেরনিয়াবাদ, গিয়াস উদ্দিন, মোহাম্মাদ দিদার সহ বেশ কিছু বাংলাদেশী কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ। তাদের মতে সিনেটর জিম হুইলেন পুনরায় নির্বাচিত হওয়ায় বাংলাদেশী কমিউনিটি অনেক বেশী লাভবান হয়েছে যদিও সস্তায় নেতা হওয়ার আশায় কিছু সংখ্যক বাংলাদেশী পরিক্ষিত এই নেতাকে সমর্থন না করে রিপাবলিকান পার্টির প্রার্থীকে সমর্থন করেছেন।

সিনেটর জিম হুইলেন পেশায় একজন শিক্ষক, রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত থেকেও দীর্ঘ ২৮ বছর পর্যন্ত শিক্ষকতা করছেন। পরপর দুই বারের নির্বাচিত আটলান্টিক সিটি মেয়র ছিলেন তিনি। মেয়র থাকা কালীন সময়ে আটলান্টিক সিটির ব্যাপক উন্নয়ন সাধনের পাশাপাশি দক্ষিণ পূর্ব এশিয়া থেকে আসা অভিবাসীদের সাথে গড়ে তোলেন নিবির সম্পর্ক। আমেরিকার ইতিহাসে তিনি হলেন বাংলাদেশীদের সব চেয়ে প্রিয় ব্যক্তিত্ব। বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার আমেরিকা সফরকালে নিউজার্সি ষ্টেট সিনেটে রেজুলেশন পাশ করে যে সম্মান প্রদর্শন করা হয়েছিল সিনেটর জিম হুইলেন ছিলেন সেই রেজুলেশন স্পন্সর-কারী একমাত্র ব্যক্তিত্ব।

১৯৪৮ সালের ৮ই নভেম্বর জন্ম গ্রহণ করা সিনেটর জিম হুইলেন টেম্পল ইউনিভার্সিটি থেকে ইংরেজি সাহিত্যে বি,এ ও এম এড পাশ করেন। প্রথমে মার্টিন লুথার কিং এলিমেন্টারী স্কুলে শিক্ষকতা শুরু করেন, ১৯৯০ সন থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত পরপর দুইবার আটলান্টিক সিটি মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০০৬ সালে এসেম্বলি ম্যান নির্বাচিত হন, ২০০৮ সালে নিউজার্সি ষ্টেট সিনেটর নির্বাচিত হন এবং সেই থেকে সুনামের সাথে ষ্টেট সিনেটে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। ২০১১ সনের ৮ই নভেম্বর ৬৪ তম জন্মদিনে পুনরায় ষ্টেট সিনেটর নির্বাচিত হলেন তিনি। খবর গৌরনদী ডটকম

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »