আর্কাইভ

চাঁদা না পেয়ে অপহরনের পর স্কুল ছাত্রকে হত্যার চেষ্টা

নিজস্ব সংবাদদাতা ॥ বরিশালের গৌরনদী উপজেলার বাঘার গ্রামের সৌদী প্রবাসীর স্ত্রীর কাছে দাবিকৃত চাঁদার টাকা না পেয়ে স্থানীয় চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা তার স্কুল পড়ুয়া পুত্রকে অপহরনের পর জবাই করে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত শনিবার (১৪ জানুয়ারি) রাতে। এসময় স্কুল ছাত্রের ডাক চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে অপহরনকারীর পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এলাকাবাসি ধাওয়া করে ঘটনার মূল নায়ক মাসুম হাওলাদার ও তার ব্যবহৃত মটরসাইকেল আটক করে পুলিশের কাছে সোর্পদ করেছে। এ ঘটনায় রবিবার গৌরনদী থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়।

ওই গ্রামের সৌদি প্রবাসী ফারুক পাঠানের স্ত্রী রেহানা বেগম জানান, তার পুত্র সাকিব পাঠান (১৩) মাহিলাড়া এ.এন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নবম শ্রেনীর ছাত্র। তিনি আরো জানান, একই গ্রামের নাদের আলী হাওলাদাদের পুত্র এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী মাসুম হাওলাদার ও তার সহযোগীরা গত এক সপ্তাহ পূর্বে তার বাড়িতে গিয়ে দুই লক্ষ টাকা চাঁদা দাবি করে। এক সপ্তাহের মধ্যে দাবিকৃত চাঁদা পরিশোধ করা না হলে সন্ত্রাসীরা তার পুত্র স্কুল ছাত্র সাকিবকে অপহরন করে হত্যা করা হবে বলেও হুমকি দেয়। এরইমধ্যে গত শনিবার (১৪ জানুয়ারি) বিকেলে প্রাইভেট শেষে তার পুত্র (সাকিব) স্কুল থেকে বাড়ি ফিরছিলো। পথিমধ্যে ডিএইচবি হাটের সন্নিকটে পৌঁছলে সন্ত্রাসীরা অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে মটরসাইকেলযোগে সাকিবকে অপহরন করে নিয়ে যায়। পরবর্তীতে উপজেলার বাটাজোর ইউনিয়নের চন্দ্রহার গ্রামের নির্জন একটি বাগানে নিয়ে সাকিবের হাত পা বেঁধে শারীরিক নির্যাতন করা হয়। ওইদিন গভীর রাত সন্ত্রাসীরা ধারাল অস্ত্র দিয়ে সাকিবকে জবাই করে হত্যার চেষ্টা চালায়।

এ ঘটনায় স্কুল ছাত্রের মা রেহানা বেগম বাদি হয়ে রবিবার সকালে মাসুম হাওলাদারসহ আরো অজ্ঞাতনামা ৪/৫ জনকে আসামি করে গৌরনদী থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। গ্রেফতারকৃত মাসুমকে রবিবার দুপুরে বরিশাল আদালতে প্রেরন করা হয়েছে।

আরও পড়ুন

মন্তব্য করুন

আরও দেখুন...
Close
Back to top button
Translate »