আর্কাইভ

মহাসড়কের সংস্কার কাজের মন্থর গতি দেখে অসন্তোষ প্রকাশ – বিশ্ব ব্যাংক ব্যর্থ হলে ভিন্ন উপায়ে এ সরকারের বাকী মেয়াদেই পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ শুরু করা হবে -যোগাযোগমন্ত্রী ওবায়েদুল কাদের

গৌরনদী সংবাদদাতা ॥ যোগাযোগ মন্ত্রী ওবায়েদুল কাদের বলেছেন, বিশ্ব ব্যাংক ব্যর্থ হলে ভিন্ন উপায়ে এ সরকারের বাকী মেয়াদেই পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ শুরু করা হবে। ইতোমধ্যে নদীর দুই পড়ের জমি অধিগ্রহন, অধিগ্রহনকৃত জমির ভেতরের ঘর বাড়ির মালিকদের ক্ষতিপুরন দেয়া, দুই পাড়ে প্রাথমিক স্কুল, মসজিদ নির্মাণসহ এ খাতে প্রায় ১৫০০ (পনের শত) কোটি টাকা ব্যায় করা হয়েছে। এখন শুধু মূল ব্রিজটি নির্মাণ কাজ বাকী রয়েছে।

রোববার সকালে বরিশালের গৌরনদী উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে মন্ত্রীকে দেয়া এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বক্তৃতাকালে ও বরিশাল-ঢাকা মহাসড়কের সংস্কার কাজ পরিদর্শন কালে স্থানীয় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। মন্ত্রী আরো বলেন, মাননীয়া প্রধানমন্ত্রী, জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশের দক্ষিন পশ্চিমাঞ্চলের মানুয়ের কাছে এ সেতু নির্মাণে যে ওয়াদা করেছেন তা পুরন করতে সরকারের বেধে দেয়া সময়ের মধ্যে বিশ্ব ব্যাংক যদি সেতু নির্মান কাজ শুরু করতে ব্যর্থ হয়, তা হলে আমরা ভিন্ন উপায়ে এ সেতুর নির্মাণ কাজ শুরু করব। ইতোমধ্যে কয়েকটি দেশের সাথে আমাদের কথা হয়েছে। তবে কি উপায়ে আমরা এটা করব তা এখন বলবোনা। ধৈর্য্য ধরুন আপনারা দেখতে পাবেন। আগামী ২১ মার্চ বরিশালে প্রধানমন্ত্রীর জনসভাকে জনসমুদ্রে পরিনত করার আহব্বান জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, বিএনপি শ্লোগান দিয়েছিল চলোচলো ঢাকা চলো, আর ২১ মার্চ আমাদের নেতা কর্মীর শ্লোগান দেবে চলোচলো বরিশাল চলো। বরিশালে স্মরন কালের সর্ববৃহত জনসমাবেশ ঘটিয়ে আমরা শ্লোগান দেব চলো চলো ঢাকার বাইরে চলো, চলো চলো গ্রামে চলো, চলোচলো রাস্তাঘাট মেড়ামত করতে চলো।

আজ রোববার সকাল ৯টা ৪২ মিনিটে মন্ত্রী হেলিকপ্টার যোগে গৌরনদী পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে এসে নামেন। তার সফর সঙ্গী ছিলেন আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী আমীর হোসেন আমু। সেখান থেকে তিনি গাড়ীযোগে গৌরনদী উপজেলা পরিষদ ডাক বাংলোতে গিয়ে বিশ্রাম নেন। এর পর সকাল সোয়া ১০টায় মন্ত্রী গৌরনদী উপজেলা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে তাকে দেয়া সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগ দেন। বরিশাল-১ আসনের এমপি অ্যাডভোকেট তালুকদার মোঃ ইউনুসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ওই সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য সাবেক মন্ত্রী আমীর হোসেন আমু ও বিশেষ অতিথি হিসেবে জাতীয় সংসদের সাবেক চীফ হুইপ আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ্, বরিশাল সিটি মেয়র অ্যাডভোকেট শওকত হোসেন হিরন উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, জনতা ব্যাংকের পরিচালক ও আওয়ামীলীগ নেতা অ্যাডভোকেট বলরাম পোদ্দার বাবলু, গৌরনদী উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোঃ শাহ আলম খান, গৌরনদী পৌর মেয়র মোঃ হারিছুর রহমান হারিছ প্রমুখ।

প্রধান অতিথি আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আমীর হোসেন আমু বলেন, বরিশালে শেখ হাসিনার আগামী ২১ মার্চের জনসভায় যোগ দিয়ে তার হাতকে শক্তিশালী করুন। এ সরকারের আমলেই আমরা যুদ্ধ অপরাধীদের বিচার করবো।

সংবর্ধনা শেষে মন্ত্রী ৫ কোটি ৭৬ লাখ টাকা ব্যায়ে বরিশাল থেকে ভুরঘাটা পর্যন্ত বরিশাল-ঢাকা মহাসড়কের গৌরনদী উপজেলার আশোকাঠি এলাকায় সড়কের সংস্কার কাজ পরিদর্শন করেন। তখন মহাসড়কের সংস্কার কাজ মন্থর গতিতে চলায় মন্ত্রী অসন্তোষ প্রকাশ করেন। এ সময় তিনি সড়ক ও জনপথ বিভাগের কর্মকর্তা ও সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারকে ডেকে কাজের গতি বাড়ানোর নির্দেশ দেন। তখন তিনি ঠিকাদারকে উদ্দেশ্য করে বলেন, আপনার কাজের গতি এত স্লো কেন, আপনার টাকার সমস্যা থাকলে আমাকে বলুন, আমি আপনাকে টাকা দিব, কিন্তু কাজ দ্রুত সম্পন্ন করতে হবে। তিনি হুশিয়ারী উচ্চারন করে বলেন, আগামী ২১ মার্চ বরিশালে প্রধানমন্ত্রীর জনসভা অনুষ্ঠানের আগেই যেন সড়কের সংস্কার কাজ শেষ করা হয়। জনসভায় আসা নেতা কর্মীদের মুখে আমি যেন কোন অভিযোগ না শুনি যে, এ মহাসড়ক দিয়ে জনসভায় যেতে তাদেরকে দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে। পরিদর্শন শেষে বেলা সোয়া ১১টায় তিনি গৌরনদী থেকে সড়ক পথে বরিশালের উদ্দেশ্যে রওনা হয়ে যান।

আরও পড়ুন

মন্তব্য করুন

আরও দেখুন...
Close
Back to top button
Translate »