আর্কাইভ

আগৈলঝাড়ায় ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে চলছে সরকারি দপ্তরের কার্যক্রম

খোকন আহম্মেদ হীরা, গৌরনদী ॥ বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলায় গণপূর্ত অধিদপ্তরের ভবনে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলছে সরকারি দুটি দপ্তরের কার্যক্রম।আগৈলঝাড়ায় ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে চলছে সরকারি দপ্তরের কার্যক্রম ঝুঁকিপূর্ণ এ ভবনটি নির্মানের পর থেকে অধ্যবর্ধি সংস্কার না হওয়ায় সরকারি দুটি অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীরাসহ আগত লোকজন প্রতিনিয়ত জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চরম উৎকন্ঠার মধ্যে কাজ কর্ম চালাচ্ছেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ১৯৮৫ সনে নির্মিত এ ভবনটি উপজেলা আদালত ভবন ও হাজতখানা হিসেবে ব্যবহার করা হতো। পরবর্তীতে উপজেলা পরিষদের কার্যক্রম স্থগিত হওয়ায় ভবনটি পরিত্যক্ত হয়ে পরে। ফলে ভবনের বিভিন্নস্থানের প্লাষ্টার খসে বড় ধরনের ফাঁটল ধরে পুরো ভবনটি মারাত্মত ঝুঁকিপূর্ণ ও জরাজীর্ন হয়ে পরে। উপজেলা সদরে কোন কার্যালয় ও কার্যক্রমের সুবিধা না থাকায় মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস ও  সেটেলম্যান অফিসের কার্যক্রম ওই পরিত্যক্ত ভবনে চলছে ভাড়ার বিনিময়ে। গণপূর্ত বিভাগ ভাড়া আদায় করলেও দীর্ঘদিনেও ভবনটি সংস্কারের কোন উদ্যোগ গ্রহন করেননি। ভবনটি সংস্কারের জন্য সংশ্লি¬ষ্ট অফিস থেকে বছরের পর বছর আবেদন নিবেদন করলেও গণপূর্ত বিভাগ তাতে কোন কর্ণপাতই করেননি। ফলে যেকোন সময় ভবনটি ধ্বসে বড় ধরনের প্রাণহানির আশংকা করছেন এলাকার সচেতন মহল।

সংশ্লিষ্ট অফিসের কর্মরত কর্মকর্তারা জানান, ২০০২ সনের ১ জানুয়ারি উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে গণপূর্ত বিভাগের ওই ভবনটির দুটি কক্ষ মাসিক ভাড়া হিসেবে বরাদ্দ দেয় গণপূর্ত বিভাগ। ওই সময় থেকে এ পর্যন্ত ভাড়া পরিশোধের মাধ্যমে প্রতি মুহুর্তে কর্মকর্তা, কর্মচারীরা ও অফিসে আগত জনসাধারন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ চালিয়ে আসছে। সূত্রমতে, ভবন সংস্কারের জন্য ২০০৮ সালের ৩ মার্চ, ২০০৯ সালের ২০ মে, একই বছর ১৯ সেপ্টেম্বর ৩ দফায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা চেয়ারম্যানের মাধ্যমে লিখিতভাবে আবেদন করা হয়। বর্তমানে ভবনটি এতই ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পরেছে যে চারদিকের দরজা-জানালা ভাঙ্গা, ছাদের প্লাস্টার উঠে গিয়ে রড বের হয়ে গেছে। সামান্য বৃষ্টি হলেই ভবনের ছাদ দিয়ে পানি পরে অফিসের গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র নষ্ট হয়ে যায়। দীর্ঘদিন ধরে ভাঙ্গা দরজা-জানালা ও ছাদে কোন রকমে পলিথিনের কাগজ দিয়ে অফিসের কার্যক্রম চালানো হচ্ছে। এসব অফিসে কাজের জন্য প্রতিদিন আগত জনসাধারন চরম আতংক ও ঝুঁকির মধ্য দিয়ে তাদের কাজ করছে।

আগৈলঝাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দীপঙ্কর বিশ্বাস ভবনটি ঝুঁকিপূর্ণর সত্যতা স্বীকার করে বলেন, উপজেলা ও জেলার মাসিক সমন্বয় সভায় একাধিকবার আলোচনা করে ভবনটি সংস্কারের জন্য গণপূর্ত বিভাগকে অবহিত করা হয়েছে।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »