আর্কাইভ

থানায় আসার পূর্বেই নবজাতকের মৃত্যু

নিজস্ব সংবাদদাতা ॥ শশুর বাড়িতে ফিরে যাবার জন্য থানা পুলিশের সহযোগীতা পাওয়ার আসায় একদিনের নবজাতক সন্তানকে নিয়ে থানায় উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়েছিলো প্রসূতি মা খুকু মনি (২০)। কিন্তু ভাগ্যের কি নির্মম পরিহাস থানায় পৌঁছার আগেই পথে বসে মারা যায় নবজাতক কন্যা সন্তান। মর্মান্তিক এ ঘটনাটি ঘটেছে আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বরিশালের গৌরনদী বাসষ্ট্যান্ড এলাকায়।

জানা গেছে, গৌরনদী উপজেলার হোসনাবাদ গ্রামের গিয়াস উদ্দিন মৃধার পুত্র গোলাম মোস্তফা মিয়া সাথে গত বছরের ২ ডিসেম্বর সামাজিক ভাবে বিয়ে হয় বাবুগঞ্জ উপজেলার দেহেরগতি গ্রামের মৃত আব্দুল মালেক হাওলাদারের কন্য খুকু মনির।

খুকু মনির বোন নাছিমা বেগম জানান, তাদের পিতৃ-মাতৃহীন একমাত্র ছোট বোন খুকু মনির বিয়ের সময় বর পক্ষের দাবিকৃত নগদ ৬০ হাজার টাকা, স্বর্ণালংকারসহ অন্যান্য মালামাল পরিশোধ করা হয়। বিয়ের কিছুদিন যেতে না যেতেই খুকু অন্তঃস্বত্তা হয়ে পরে। এরপর স্বামী ও তার পরিবারের লোকজনে বিভিন্ন অপবাদ দিয়ে খুকু মনিকে তার স্বামীর বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয়। সেই থেকে খুকু মনি তার বোন নাছিমা বেগমের গৌরনদী বাসষ্ট্যান্ড সংলগ্ন বাসায় বসবাস করে আসছিলো। এরইমধ্যে গত ৩০ এপ্রিল গোলাম মোস্তফা দুবাইতে পাড়ি জমায়। এরপর অন্তঃস্বত্তা খুকু মনি একাধিকবার শশুড় বাড়িতে উঠতে চেয়েও ব্যর্থ হয়।

এরইমধ্যে গত বুধবার (৩ অক্টোবর) দুপুরে গৌরনদী মা ও শিশু কল্যান কেন্দ্রে খুকু মনির একটি কন্যা সন্তান প্রসব করে। অসহায় গৃহবধূ খুকু মনি তার একদিনের নবজাতক কন্যা সন্তানকে নিয়ে শশুড় বাড়িতে ওঠার জন্য থানা পুলিশের সহযোগীতা পেতে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় গৌরনদী থানার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়। থানার পৌঁছার পূর্বেই নবজাতক সন্তানটি মারা যায়।

গৌরনদী থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি আবুল কালাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, খুকু মনির শশুড় গিয়াস উদ্দিন মৃধাকে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে খবর দেয়া হয়েছে। সে থানায় আসলেই খুকু মনিকে ওই বাড়িতে নেয়ার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

আরও পড়ুন

মন্তব্য করুন

Back to top button
Translate »