আর্কাইভ

গৌরনদী-পয়সারহাট মহাসড়কের পুর্ননির্মাণ কাজ বন্ধ করে দিয়েছে এলাকাবাসী – সড়ক ও জনপথের দুই কর্মকর্তা লাঞ্ছিত

স্টাফ রিপোর্টার ॥ স্বজনপ্রীতি ও পক্ষপাতিত্বমূলক আচরনের কারনে বরিশালের গৌরনদী পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা সওজের (সড়ক ও জনপথের) দু’কর্মকর্তাকে লাঞ্ছিত করেছে। এ সময় অনিয়ম ও দুনীতির অভিযোগে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী গৌরনদী-পয়সারহাট মহাড়কের পুর্ননির্মাণ কাজ বন্ধ করে দিয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার দুপুরে।

জানা গেছে, সরকারের নিজস্ব অর্থায়নে ১৪ কোটি টাকা ব্যয়ে গৌরনদী বাসষ্ট্যান্ড থেকে আগৈলঝাড়া বাইপাস পর্যন্ত আট কিলোমিটার মহাসড়ক উন্নয়ন কাজ বাস্তবায়ন করছে ওরিয়েন্ট ট্রেডিং এ্যান্ড বিল্ডার্স (ওটিবিএল) নামের একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। এ কাজ বাস্তবায়নে ইতোপূর্বে সওজের পক্ষ থেকে সড়কের দু’পাশের প্রয়োজনীয় জমি অধিগ্রহন করা হয়। অধিগ্রহনের আগে ও পরে ওই সড়কের গৌরনদী বাসষ্ট্যান্ড থেকে নাহার সিনেমা হল পর্যন্ত অংশের জমির পূর্বের মালিকগণ দোকানপাট ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুলে বসে। সড়কের উন্নয়ন কাজ বাস্তবায়নের লক্ষে সম্প্রতি ওই সকল অবৈধ দখলদারদেরকে তাদের অবৈধ স্থাপনা সড়িয়ে নেয়ার জন্য নোটিশ দেয়া হয়। কিন্তু কোন দখলদারই তাদের অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে নেয়নি। সওজের কর্মকর্তা কর্মচারীগন উপস্থিত থেকে গত ৪/৫ দিন যাবত ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের বুলডোজার দিয়ে ওই অবৈধ স্থাপনাগুলো ভাঙ্গাচ্ছিল। পাশাপাশি চলছে সড়ক প্রশস্ত করনের কাজ। এরইমধ্যে সওজের কতিপয় অসাধু কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সাথে সখ্যতা গড়ে তোলে বেশ কয়েকজন অবৈধ দখলদার। তারা স্বজনপ্রীতি, পক্ষপাতিত্ব অথবা উৎকোচের বিনিময়ে তাদের অবৈধ স্থাপনা রক্ষায় সচেষ্ট হন। সওজের ওই অসাধু কর্মকর্তারা কোন কোন অবৈধ দখলদারের স্থাপনা না ভেঙ্গে সরকারি প্রতিষ্ঠান ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের দেয়াল ভাঙ্গায় উদ্যোগী হন। সওজের কর্মকর্তা, কর্মচারীদের এহেন স্বজনপ্রীতি, অনিয়ম, দুর্নীতি দেখে ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে এলাকাবাসী। সোমবার দুপুর একটার দিকে ওই অসাধু কর্মকর্তা, কর্মচারীদের নির্দেশে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের বুলডোজার দিয়ে গৌরনদী পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দেয়াল ভাঙ্গার কাজ শুরু করলে বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা বাঁধা দেয়। তারা দাবি জানায়, আগে সড়কের পাশের অবৈধ দোকান পাট ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভাঙ্গতে হবে। তারপর বিদ্যালয়ের দেয়াল ভাঙ্গতে দেব। এ নিয়ে স্কুলের শিক্ষক ও ম্যানেজিং কমিটির কর্মকর্তা ও শিক্ষার্থীদের সাথে বাগবিতন্ডার একপর্যায়ে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের এক শ্রমিক প্রধান শিক্ষক মোঃ অলিউল্ল¬¬াহকে ধাক্কা দেয়। এরজের ধরে বিদ্যালয়ের বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা সওজের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী আবু জাফর খান ও সেকশনাল অফিসার শিশির কুমার বড়ালকে লাঞ্চিত করে।

খবর পেয়ে গৌরনদী উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দা মনিরুন নাহার মেরী ঘটনাস্থলে পৌছে বিষয়টি মীমাংসার জন্য উদ্যোগ নেন। ভাইস চেয়ারম্যান তার কথা শোনার জন্য সওজের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী আবু জাফর খানকে অনুরোধ করলে জাফর খান তার অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করে। ভাইস চেয়ারম্যানের সাথে অসৌজন্যমুলক আচরন করেন জাফর। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে এলাকাবাসী সড়কের কাজ বন্ধ করে দেন। উৎকোচ গ্রহনের অভিযোগ অস্বীকার করে সওজের উপ বিভাগীয় প্রকৌশলী আবু জাফর খান, ওয়ার্ক এ্যসিষ্ট্যান্ট কাঞ্চন আলী সরদার ও মজিবুর রহমান বলেন, এখানে কোন প্রকার স্বজনপ্রীতি, অনিয়ম, দুর্নীতি হয়নি। আমাদের কাজে যে ক্ষতিগ্রস্ত হন তিনিই আমাদের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ করেন।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »