আর্কাইভ

জোরপূর্বক বিয়ের করার জন্য স্কুল ছাত্রীর হাতে শাখা পরিয়ে দেয়ার সময় – দু’বখাটে গ্রেফতার

নিজস্ব সংবাদদাতা ॥ আগৈলঝাড়ায় প্রতারনার মাধ্যমে বিয়ের করার জন্য সপ্তম শ্রেনীতে পড়ুয়া এক স্কুল ছাত্রীর হাতে জোরপূর্বক শাখা পরিয়ে দেয়ার সময় স্কুল ছাত্রীর ডাকচিৎকারে স্থানীয়রা দু’বখাটেকে আটক করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছে। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল বুধবার বিকেলে।জোরপূর্বক বিয়ের করার জন্য স্কুল ছাত্রীর হাতে শাখা পরিয়ে দেয়ার সময় - দু’বখাটে গ্রেফতার

পুলিশ জানায়, মাদারীপুর সদর উপজেলার লক্ষিগঞ্জ গ্রামের ইতালী প্রবাসী রাহেল উদ্দিনের কন্যা ও স্থানীয় ডনমন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী রাবেয়া খানম তার নানাকে নিয়ে গত সোমবার ফকিরি চিকিৎসা নিতে গোপালগঞ্জ জেলার কোটালীপাড়া থানার মুশুরিয়া গ্রামের কথিত ফকির আন্দ্রিয় বাড়ৈর বাড়ি আসে। ওই বাড়ির তিমথী বাড়ৈর বখাটে পুত্র তাপস বাড়ৈর লোলুপ দৃষ্টি পড়ে ওই ছাত্রীর ওপর। বুধবার বিকেলে তাপস ও তার সহযোগী একই গ্রামের কৃষ্ণ সরকারের পুত্র দীপক সরকারকে নিয়ে পুর্ব পরিকল্পিতভাবে কৌশলে ওই ছাত্রীকে তার পিসি বাড়ি গৌরনদী উপজেলা সদরে পৌঁছে দেয়ার জন্য রওয়ানা হয়। পথিমধ্যে আগৈলঝাড়া উপজেলা সদরে পৌঁছলে বখাটেরা জোড়পুর্বক স্কুল ছাত্রীর হাতে শাখা পরিয়ে দেওয়ার চেষ্ঠা করে। এসময় স্কুল ছাত্রীর ডাকচিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে ওই ছাত্রীর কথা শুনে বখাটে তাপস ও দীপককে আটক করে থানা পুলিশের কাছে সোর্পদ করে।

আগৈলঝাড়া থানার ওসি মোঃ সাজ্জাদ হোসেন জানান, বিষয়টি মোবাইল ফোনের মাধ্যমে স্কুল ছাত্রী রাবেয়ার মা মাদারীপুর সুফিয়ান ডিগ্রী কলেজের প্রভাষক রাইসা আক্তার মিতুকে জানানো হয়েছে। তিনি লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরও পড়ুন

মন্তব্য করুন

আরও দেখুন...
Close
Back to top button
Translate »