আর্কাইভ

গৌরনদীর বার্থী ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষর অপসারনের দাবিতে এইচ এসসি শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা বর্জন

নিজস্ব সংবাদদাতা ॥ দূর্নীতি, স্বজনপ্রীতি, স্বেচ্ছাচারিতা ও অসাদচারসহ ১৭ দফা দাবি আদায়ের লক্ষে বরিশালের গৌরনদী উপজেলার বার্থী ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ কাজী আব্দুস ছালেমর অপসারনের দাবিতে সোমবার সকালে এইচএসসি শিক্ষার্থীরা পরিক্ষা বর্জন করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। এসময় অধ্যক্ষকে তার কার্যালয়ে অবরুব্ধ করে রাখে। এসময় শিক্ষার্থীরা অধ্যক্ষের অবৈধ নিযোগ ও দূর্নীতির লিফলেট বিতরন করে। খবর পেয়ে গৌরনদী থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে কলেজের গভানিংবডির সভাপতি ও স্থানীয় সংসদ সদস্যর সাথে বিক্ষুব্ধদের আলোচনা সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিলে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

কলেজ ও শিক্ষার্থীদের সুত্রে জানাগেছে, বার্থী ডিগ্রী কলেজে একাদশ শ্রেণীর প্রথম বর্ষে অর্ধবাষিকী ও ২য় বর্ষের নির্বাচনী পরিক্ষা গত ২১ নভেম্বর থেকে শুরু হয়েছে। বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থী আমিনুল ইসলাম, তারেক বেপারী, নাজমূল ইসলামসহ একাধিক শিক্ষার্থী অভিযোগ করেন, ২০০৬ সালে মন্ত্রনালযের অডিটের নামে শিক্ষক ও কর্মচারীদের কাছ থেকে লক্ষাধিক টাকা আদায় করে আত্মসাত করেন। এ ছাড়া তফসিলী সম্প্রদায় ভুক্ত শিক্ষার্থীদের জন্য মন্ত্রণালয় প্রদত্ত প্রতি শিক্ষার্থীদের ১৫০০ টাকা স্থলে শুন্য খাতায় স্বাক্ষর করে এক হাজার টাকা প্রদান করেন। ডিগ্রী কোঠায় নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষককে মোটা অংকের ঘুষ খেয়ে এইচএসসি কোঠায় নিয়মবর্হিভুত ভাবে নিয়োগ দিয়ে এমপিও ভুক্ত করেন লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেন।। প্রকাশনা কোম্পানীর সৌজন্য কপিতে অধ্যক্ষর ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান ইসলামীয়া লাইব্রেরীর নামে সিল দিয়ে বিক্রি করছেন। এ ছাড়া শিক্ষার্ক্ষীরা কলেজের অধ্যক্ষর কাছে বিভিন্ন সমস্যাসহ ১৭ দফা দাবি আদায়ের জন্য ধর্না দিয়ে আসছে। দীর্ঘ দিনেও দাবি না মানায় গতকাল সোমবার ২য় বর্ষের ইসলামি ইতিহাস, স্বাচিবি বিদ্যা এবং প্রথম বর্ষের সংস্কৃত ও ইতিহাস পরিক্ষা বর্জন করে প্রায় ২৫০ জন পরিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ করে। এ সময় অধ্যক্ষকে তার কার্যালয়ে অবরুব্ধ করে রাখে। খবর পেয়ে আঁধা ঘন্টা পর গৌরনদী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবুল কালাম একদল পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে বিক্ষুব্ধদের সাথে কথা বলেন। পরবর্তীতে শিক্ষার্থীদের মধ্য থেকে কয়েকজনকে তার সাথে নিয়ে এসে গৌরনদী সদরে গভানিংবডির সভাপতি ও স্থানীয় সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট তালুকদার মো. ইউনুসের সাথে বৈঠক করান। সাংসাদের আশ্বাসে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

বার্থী ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ কাজী আব্দুস ছালাম অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, গভানিংবডির সদস্য ও বার্থী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহজাহান প্যাদা পরিক্ষা বন্ধ রাখার অনুরোধ করায় পরিক্ষা স্থগিত করা হয়েছে। গৌরনদী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবুল কালাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন।

গৌরনদীর বার্থী ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষর অপসারনের দাবিতে এইচ এসসি শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা বর্জন

আরও পড়ুন

মন্তব্য করুন

Back to top button
Translate »