আর্কাইভ

বরিশালে পুলিশের ওপর আ’লীগের হামলা ॥ গ্রেফতারের ঘটনায় মিছিল

নিজস্ব সংবাদদাতা ॥ বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার প্রত্যন্ত বিদ্যানন্দপুর ইউনিয়নের বানঘাট গ্রামে গতকাল রবিবার দুপুরে বিরোধীয় সম্পত্তিতে ঘর উত্তোলনে বাঁধা দেয়ায় ৫ পুলিশের ওপর হামলা চালিয়েছে আ’লীগের নেতা-কর্মীরা। এসময় ঘটনাস্থলে থাকা এএসআই রাসেলকে মারধর করে একটি ঘরে আটক করে রাখার পর চার পুলিশ সদস্য পালিয়ে পার্শ্ববর্তী মুলাদী থানায় আশ্রয় নেয়। খবর পেয়ে মুলাদী ও মেহেন্দিগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে আহত এএসআই রাসেলকে উদ্ধার করেন। পুলিশের ওপর হামলা ও অস্ত্র ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টার অভিযোগে সোহরাব পালোয়ান ও সমীর পালোয়ান নামের দুআ’লীগ নেতাকে গ্রেফতার করা হয়। এ ঘটনার প্রতিবাদে তাৎক্ষনিক পুলিশের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল বের করে আওয়ামীলীগের নেতা-কর্মীরা। পুলিশের ওপর হামলার ছবি তুলতে গেলে হামলাকারীরা স্থানীয় সাংবাদিক রাসেলের ক্যামেরা ছিনিয়ে নিয়ে তাকে লাঞ্চিত করে।

বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, বানঘাট গ্রামের সেকেন্দার আলী ও ইদ্রিস মল্লিকের সাথে একই গ্রামের সোহরাব হোসেন পালোয়ান, আলমগীর মীরা, বাবুল বেপারী, সমির পালোয়ান ও স্বজল মাতুব্বর গংদের জমিজমা নিয়ে দীর্ঘদিন থেকে বিরোধ চলে আসছিলো। প্রতিপক্ষের লোকজনে জোরপূর্বক ঘর উত্তোলন করার পায়তারা চালালে জমির মালিকানা দাবিদার সেকেন্দার ও ইদ্রিস মল্লিক বিষয়টি কাজিরহাট পুলিশকে লিখিতখাবে অবহিত করেন। ঘর তোলা নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের আশংকায় রবিবার দুপুরে একদল ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছেন এএসআই রাসেল। তিনি বিরোধ মিমাংসা করে ঘর উত্তোলনের পরামর্শ দেন। এসময় পুলিশের সাথে ইউনিয়ন আ’লীগ নেতা ও ইউপি সদস্য শাহে আলম ও বাবুল হোসেনের বাকবিতন্ডা হয়। একপর্যায়ে শাহে আলমের লোকজনে পুলিশের ওপর হামলা চালায়। হামলাকারীরা এএসআই রাসেলকে বেধম মারধর করে একটি ঘরে আটক করে রাখে। আ’লীগ নেতা-কর্মীমের ধাওয়ার মুখে ঘটনাস্থলে উপস্থিত অন্যান্য পুলিশ সদস্যরা পাশ্ববর্তী মুলাদী থানায় আশ্রয় নেয়। খবর পেয়ে মুলাদী ও মেহেন্দিগঞ্জ থানা পুলিশের দুটি টিম ঘটনাস্থলে পৌঁছে আটককৃত এএসআই রাসেলকে উদ্ধার করে। পুলিশের ওপর হামলা ও অস্ত্র ছিনিয়ে নেয়ার ঘটনায় গ্রেফতার করা হয় ইউনিয়র আ’লীগের যুগ্ম সম্পাদক সোহরাব পালোয়ান ও কৃষকলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সমীর পালোয়ানকে। এদিকে আ’লীগ নেতাদের গ্রেফতারের প্রতিবাদে পুলিশের বিরুদ্ধে মিছিল বের করেন স্থানীয় আ’লীগের নেতা-কর্মীরা।

মেহেন্দিগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি (ভারপ্রাপ্ত) এস.আই অসীম কুমার সিকদার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, বিরোধীয় সম্পত্তি নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের আশংকার খবর পেয়ে কাজিরহাট তদন্ত কেন্দ্র থেকে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। বিরোধ নিস্পত্তি করে ঘর উত্তোলনের কথা বলা হলে আ’লীগ নেতা-কর্মীরা পুলিশের ওপর হামলা করে। এতে এএসআই রাসেল গুরুতর আহত হয়। কাজিরহাট পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মোঃ ফারুক জানান, পুলিশের ওপর হামলা ও অস্ত্র ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টার অভিযোগে দু’জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বরিশাল পুলিশ সুপার মোঃ একেএম এহসান উল্লাহ জানান, পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »