আর্কাইভ

গৌরনদী উপজেলা চত্বরে বখাটেদের অভ্যয়ারন্য

নিজস্ব সংবাদদাতা ॥ বরিশালের গৌরনদী উপজেলা পরিষদ চত্বর রিতিমতো এখন বখাটে ও ছিঁছকে মাস্তানদের অভ্যয়ারন্যে পরিনত হয়েছে। সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত চত্বরের একাধিক নির্জনস্থান এখন ওইসব ছিঁছকে মাস্তানদের মাদক সেবনের নিরাপদ ঘাটি হিসেবে পরিনত হয়েছে। এছাড়াও উপজেলা পরিষদের একাধিক কর্মকর্তাসহ আগত জনসাধারনদের বিভিন্ন ধরনের হয়রানী করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে। ভুক্তভোগীরা এ সমস্যা সমাধানের জন্য জরুরি ভিত্তিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে উপজেলার বিভিন্ন দপ্তরের একাধিক কর্মকর্তা ও ভুক্তভোগী জনসাধারনেরা অভিযোগ করেন, স্থানীয় প্রভাবশালী কতিপয় ব্যক্তির ছত্রছায়ায় দীর্ঘদিন থেকে বখাটে ও ছিঁছকে মাস্তানরা গৌরনদীর পুরো উপজেলা পরিষদ চত্বরটিতে নানা অপর্কম করে আসছে। ফলে দিনে দিনে উপজেলা পরিষদ চত্বরটি বখাটে ও ছিঁছকে মাস্তানদের অভ্যয়ারন্যে পরিনত হয়েছে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে উপজেলার বিভিন্ন দপ্তরের একাধিক কর্মকর্তারা জানান, কারনে অকারনে স্থানীয় প্রভাবশালী ব্যক্তিদের লোক বলে পরিচয়দানকারী ওইসব ছিঁছকে মাস্তানরা তাদের বিভিন্ন ধরনের হয়রানী করে আসছে। ফলে ইতোমধ্যে অনেকেই বদলী হয়ে অন্যত্র চলে যেতে বাধ্য হয়েছেন। ভুক্তভোগী লিমন তালুকদার জানান, সম্প্রতি তিনি অফিসিয়াল কাজের জন্য উপজেলা চত্বরে তার ব্যবহৃত মটরসাইকেলটি রেখে অফিস কক্ষে প্রবেশ করার পর কৌশলে বখাটেরা তার মটরসাইকেলটি চুরি করে নিয়ে যায়। পরবর্তীতে স্থানীয় এক প্রভাবশালী নেতার মধ্যস্থতায় দু’দিন পর পাশ্ববর্তী কালকিনি উপজেলার রমজানপুর থেকে মটরসাইকেলটি উদ্ধার করা হয়। এছাড়াও উপজেলা চত্বরের একাধিক নির্জনস্থানে সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত ওইসব বখাটে ও ছিঁছকে মাস্তানদের মাদকের আড্ডা চলে আসছে হরহামায়াশেই। ভুক্তভোগীরা বখাটে ও ছিঁছকে মাস্তানদের হয়রানী থেকে রক্ষা পেতে ও পুরো উপজেলা পরিষদ চত্বর ঘিরে বাউন্ডারী ওয়াল ও গেট নির্মানের মাধ্যমে কর্মকর্তা-কর্মচারী ও জনসাধারনের জন্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসারের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

আরও পড়ুন

মন্তব্য করুন

Back to top button
Translate »