আর্কাইভ

হেফাজতে ইসলামী, বিএনপি জামায়াতের দালালী করছে…চরমোনাই পীর

খোকন আহম্মেদ হীরা ॥  ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমীর ও চরমোনাই পীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মাদ রেজাউল করীম হেফাজতে ইসলামীকে উদ্দেশ্য করে বলেছেন, আপনারা আমাদেরকে আওয়ামীলীগের দালাল বলার চেষ্টা করছেন, অথচ আমরা দেখছি আপনারা মাঠে নেমে বিএনপি-জামায়াতের দালালী করছেন। আপনাদের মিথ্যাচার ও গভীর ষড়যন্ত্র জনগন বুঝে গেছে। হেফাজতে ইসলামী শুধু নামেই ইসলামের কথা বলছে- কামে নয়; বাংলাদেশে একমাত্র ইসলামী দল হচ্ছে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ। তারা আওয়ামীলীগতো দূরের কথা কারোই দালালী করেনা আর করবেও না। আজ শনিবার বিকেলে ইসলামী আন্দোলনের বরিশাল বিভাগীয় সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি আরো বলেন, সংখ্যাগরিষ্ঠ মুসলমানের দেশে নাস্তিকদের আস্ফালন সহ্য করতে হচ্ছে, এটা মেনে নেয়া যায় না।
আল্লাহ ও রাসুল (সাঃ)-এর দুশমন নাস্তিক-মুরতাদদের শাস্তির আইন পাশ, নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে জাতীয় সংসদ নির্বাচনসহ ৫ দফা দাবি আদায়ের লক্ষ্যে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের উদ্যোগে গতকাল শনিবার বিকেলে বরিশালে রোডমার্চ ও বিশাল জনসভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের জেলা সভাপতি ও রোডমার্চ বাস্তবায়ন কমিটির আহবায়ক মুফতি সৈয়দ ইসহাক মুহাম্মদ আবুল খায়ের।
বিকেল চারটায় শুরু হওয়া নগরীর ফজলুল হক এ্যাভিনিউতে অনুষ্ঠিত জনসভায় ইসলামী আন্দোলনের নায়েবে আমীর মাওলানা মুফতি সৈয়দ মোহাম্মদ ফয়জুল করিম বলেন, বাংলাদেশ এখন গভীর ষড়যন্ত্রের মুখোমুখি। নাস্তিক মুরতাদরা এপার-বাংলা ওপার-বাংলার সুর মিলিয়ে সীমানা মুছে দেয়ার যড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়ে পরেছেন। প্রধানমন্ত্রীর সমালোচনা করে তিনি বলেন, বামপন্থীরা আপনাকে ঘিরে রেখেছে। তারা নাস্তিকদের রক্ষা করতে পারবে না। আমরা মাঠে নেমেছি, জীবন দিয়ে হলেও আমরা এদেশে ইসলাম প্রতিষ্ঠা করবো ইনশ্আল্লাহ। তিনি প্রধানমন্ত্রীকে হুশিয়ারী দিয়ে বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনার পায়ের তলায় এখন মাটি নেই, আপনি জনবিচ্ছিন্ন, শেষ মুহুর্তে ইসলামের উপর আঘাত করবেন না, তাহলে আপনাকে করুন পরিণতি বরন করতে হবে।
ইসলামী আন্দোলনের প্রেসিডিয়াম সদস্য মোসাদ্দেক বিল্লাহ আল মাদানী বলেন, হাসিনা-খালেদার ক্ষমতার দ্বন্ধে দেশের জনগন এখন দিশেহারা। নৌকা ডুবে গেছে, ধান চিটা হয়ে গেছে, তাই সকলকে এখন হাতপাখার শীতল বাতাস গ্রহন করতে হবে।
জনসভায় যোগ দেয়ার জন্য দুপুর থেকেই হাজারো মানুষ মিছিল নিয়ে নগরীর ফজলুল হক এ্যাভিনিউতে জড়ো হতে থাকে। বিকেল চারটার অনেক আগেই জনসভাস্থল কানায় কানায় পূর্ণ হয় সাধারন মুসুল্লীদের পদচারনায়। বক্তারা নাস্তিক মুরতাদদের বিরুদ্ধে চলমান আন্দোলনকে এগিয়ে নিতে চরমোনাই পীর সাহেবের নেতৃত্বে সকলকে এগিয়ে আসার আহ্বান করেন। একইসাথে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশকে আগামী নির্বাচনে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করে দেশে ইসলামী শাসন প্রতিষ্ঠা করার সুযোগ দেয়ারও আহ্বান করেন।
জনসভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ইসলামী আন্দোলনের মহাসচিব অধ্যক্ষ মোঃ ইউনুস আহমদ, প্রেসিডিয়াম সদস্য মাওলনা নুরুল হুদা ফয়েজী, রাজনৈতিক উপদেষ্টা মাওলানা রুহুল আমিন খান, অধ্যাপক আশরাফ আলী আকন, কেন্দ্রীয় মজলিশে শুরার সদস্য নাসির আহমেদ কাওসার, নওমুসলিম ডাঃ সিরাজুল ইসলাম সিরাজী, বরিশাল জেলার সহ-সভাপতি মাওলানা মোহাম্মদ ইদ্রিস আলী, জেলা সেক্রেটারী মাওলানা সিরাজুল ইসলাম, মহানগর সেক্রেটারী মাওলানা জাকারিয়া হামিদী, ইসলামী ছাত্র আন্দোলনের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি সৈয়দ মুহাম্মদ খলিলুর রহমান, মহানগর শাখা প্রচার সম্পাদক আবদুল্লাহ আল মামুন, আইন বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট আবদুল করিম, সমাজকল্যাণ সম্পাদক মাওলানা আলী আকবর, সাবেক ছাত্রনেতা মোঃ হাফিজুর রহমান, মহানগর সহ-প্রচার সম্পাদক মোঃ কাওসারুল ইসলাম, ইসলামী আন্দোলনের মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার নেতা সুলতান আহমেদ, বরিশাল নগরীর কাউনিয়া থানা সভাপতি হাফেজ মোঃ আবুল কালাম, ইসলামী ছাত্র আন্দোলনের জেলা সভাপতি মোঃ নাসির উদ্দিন নাঈম, সেক্রেটারী আব্বাস বিন কামাল প্রমুখ।
সমাবেশে শেষে সন্ধ্যার পর নগরীর রুপাতলী হাউজিং মাঠে রাতে অবস্থান ও ওয়াজ মাহফিল শেষে আজ রবিবার সকালে প্রায় সহস্রাধীক গাড়ির বহর নিয়ে রোডমার্চ কুয়াকাটার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হবে।
উল্লেখ্য, শুক্রবার চরমোনাইর পীর সাহেব মাওলানা সৈয়দ মুফতী রেজাউল করিমের নেতৃত্বে যশোর থেকে ইসলামী আন্দোলনের রোডমার্চ শুরু করা হয়। খুলনায় বিভাগীয় সমাবেশ শেষে বিভিন্নস্থানে পথসভা করে পীর সাহেব চরমোনাইর নেতৃত্বাধীন পাঁচ হাজার গাড়ির বিশাল কাফেলা (রোডমার্চ) গোপালগঞ্জ হয়ে বরিশাল নগরীর ফজলুল হক এ্যাভিনিউতে এসে পৌঁছে শনিবার বিকেল চারটায়। ইসলামী আন্দোলনের বরিশাল মহানগর ও জেলা শাখার নেতৃবৃন্দরা পাঁচ’শ মোটরসাইকেলের বহর নিয়ে রোডমার্চকে স্বাগত জানায় নগরীর গড়িয়ারপাড়ে। নিরপেক্ষ নির্দলীয় সরকারের অধিনে জাতীয় সংসদ নির্বাচন, সংবিধানের মূলনীতিতে আল্লাহর উপর পূর্ন আস্থা ও বিশ্বাস পুনস্থাপন, আল্লাহ ও রাসুল (সাঃ) এর দুশমন নাস্তিক-মুরতাদদের শাস্তির আইন পাশ এবং ইসলামী শাসনতন্ত্র প্রতিষ্ঠাসহ ৫ দফা দাবি আদায়ের লক্ষ্যে নগরীর ফজলুল হক এভিনিউতে বরিশাল বিভাগীয় সমাবেশে রোডমার্চের গাড়ি বহর যোগদান করেন। তবে বিভিন্নস্থানের পথসভায় উপস্থিত নেতা-কর্মী ও সমর্থকদের পানি পান করিয়েছে বিএনপি ও তার সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা।

আরও পড়ুন

মন্তব্য করুন

Back to top button
Translate »