আর্কাইভ

সৌর বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত

বরিশালের প্রত্যন্ত পল্লী অঞ্চল আগৈলঝাড়া উপজেলার বাগধা গ্রামের উন্নয়নকে নিয়ে কেউ কখনও ভাবেননি। এখানে বেনারশি পল্লীসহ ক্ষুদ্র শিল্প প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে। এছাড়াও সম্ভাবনাময় অনেক শিল্প উদ্যোক্তা শিল্প প্রতিষ্ঠান গড়তে চাইলেও একমাত্র বিদ্যুতের অভাবে তা সম্ভব হচ্ছে না। বাগধা গ্রামের ব্যবসায়ী আহছান খান বলেন, বিগত আওয়ামীলীগ সরকারের সময়ে এ আসনের এমপি ও সাবেক চীফ হুইপ আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ বাগধা গ্রামে বিদ্যুৎ ব্যবস্থার জন্য অফিসিয়াল ভাবে সকলপ্রকার কাজ সম্পাদন করলেও সরকার পরিবর্তনের সাথে সাথে সে সব কাগজপত্র বিদ্যুৎ অফিস থেকে গায়েব হয়ে যায়। ওই গ্রামের ডাঃ আলফ্রেড অশোক বিশ্বাস, যাত্রাভিনেতা অনন্ত কুমার হালদার জানান, দীর্ঘদিনেও তাদের গ্রামে বিদ্যুত না পৌছায় গত ৫ বছর পূর্বে সর্ব প্রথম তারা সৌর বিদ্যুৎ স্থাপন করেন। পর্যায়ক্রমে তাদের গ্রামের চার’শ পরিবার এখন সৌর বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত হয়েছেন।

তারা আরো জানান, গ্রামীণ শক্তি ও ব্রীজ নামক কোম্পানীর সৌর বিদ্যুৎ অধিকাংশ বাড়িতে স্থাপন করা হয়েছে। ভাড়ি কোন বৈদ্যুতিক যন্ত্রাংশ যেমন-ফ্রিজ, কালার টিভি, সিলিং ফ্যান, আয়রন ইত্যাদি সৌর বিদ্যুতে ব্যবহার করা সম্ভব না হলেও সাধারন যন্ত্রাংশ যেমন-লাইট (বাতি), ছোট আকারের ফ্যান, অডিও সেট, সাদাকালো টেলিভিশন, মোবাইল চার্জার ইত্যাদি ব্যবহার করেই তারা বিদ্যুতের চাহিদা মেটাচ্ছেন। ব্যবসায়ী আপাং খান জানান, গ্রামীণ শক্তির ৪০ ওয়ার্ডের সৌর বিদ্যুৎ খুচরা মূল্যে ২৮ হাজার ও ২০ ওয়ার্ডের ১৪ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ব্রীজ সৌর বিদ্যুৎও একই দামে বিক্রি করা হয়।
স্কুল ছাত্র নাসির উদ্দিন, রবিন দাসসহ অনেকেই জানান, পল্লী বিদ্যুতের আলো না থাকলেও সৌর বিদ্যুতের আলোয় তাদের পড়াশুনার অনেকটা সুযোগ করে দিয়েছে।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »