আর্কাইভ

বিসিসি নির্বাচন : হারানো সিটি পূণরুদ্ধারে মরিয়া বিএনপি ॥ দু’টি কেন্দ্রে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট

বিশেষ প্রতিনিধি ॥  বিএনপি সমর্থিত ১৮ দলীয় জোট কেন্দ্রীয় ভাবে সিটি নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দিলেও কৌশলে তারা প্রার্থী মনোনীত করতে কালক্ষেপন করেননি। তারই ধারাবাহিকতায় বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের (বিসিসি) নির্বাচনে তারা অতীতের হারানো এ সিটি কর্পোরেশনে দলের মনোনীত মেয়র প্রার্থীকে বিজয়ী করতে মরিয়া হয়ে উঠেছেন।

ফলশ্রুতিতে এখানকার বিএনপির দু’চিরপ্রতিদ্বন্ধী মহানগর বিএনপির সভাপতি, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক মেয়র মজিবর রহমান সরোয়ার-এমপি এবং দক্ষিণ জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক মেয়র আহসান হাবিব কামাল একত্রিত হয়ে কোমর বেঁধে নির্বাচনী প্রচার প্রচারনায় মাঠে নেমেছেন। এখানে জাতীয়তাবাদী নাগরিক পরিষদের ব্যানারে বিএনপির মনোনীত মেয়র প্রার্থী হচ্ছেন আহসান হাবিব কামাল।

তবে এখানেও বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন জেলা বিএনপির সাবেক সাধারন সম্পাদক এবায়েদুল হক চাঁন। তিনি বরিশাল নাগরিক ফোরাম ব্যানারে নির্বাচনী প্রচার প্রচারনা শুরু করেছেন। এজন্য তিনি সোমবার সকালে নগরীর ঐতিহ্যবাহী রয়েল রেস্তোরায় সংবাদ সম্মেলন করে আজ মঙ্গলবার থেকে তিনি নির্বাচনী প্রচার প্রচারনায় মাঠে নেমেছেন।

অপরদিকে আওয়ামীলীগ সমর্থিত ১৪ দলের প্রার্থী হিসেবে মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সদ্য পদত্যাগী মেয়র আলহাজ শওকত হোসেন হিরনকে মনোনয়ন দেয়া হলেও এখানে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন মহানগর যুবলীগের যুগ্ন আহবায়ক মাহমুদুল হক খান মামুন। দলের র্শীর্ষ নেতারা মামুনকে নির্বাচন থেকে সড়ে দাঁড়ানোর প্রস্তাব দিলেও সে (মামুন) নির্বাচনের শেষপর্যন্ত যাওয়ার জন্য অনড় রয়েছেন।

সেক্ষেত্রে এখানকার মহাজোট নেতাদের মধ্যে বিভাজনের সৃষ্টি হয়েছে। বিএনপির দূর্গ বলেখ্যাত বরিশাল সিটিকে আ’লীগের ধরে রাখতে হলে আগামী ২৬ নবেম্বর মামুনকে মনোনয়ন প্রত্যাহার করাতেই হবে। এক্ষেত্রে দলের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন মহাজোটের তৃণমূল পর্যায়ের নেতা-কর্মীরা।

সূত্রমতে, জাতীয়তাবাদী নাগরিক পরিষদের প্রার্থী আহসান হাবিব কামাল দীর্ঘদিনের বৈরীতা কাটিয়ে মহানগর বিএনপির সভাপতি মজিবর রহমান সরোয়ার-এমপিকে নিয়ে সোমবার সন্ধ্যায় ঢাকা থেকে একযোগে বরিশালে আসেন। ওইদিন নগরীর অশ্বিনী কুমার টাউন হল চত্বরে তাদের গণসংবর্ধনাও দেয়া হয়। পরবর্তীতে গতকাল মঙ্গলবার থেকে তারা নির্বাচনী প্রচার প্রচারনায় মাঠে নেমেছেন।

আহসান হাবিব কামাল বলেন, সিটি নির্বাচন দলীয় কোন বিষয় নয়; বরিশালে যেহেতু বিএনপির সমর্থক বেশি, তাই খোলা মাঠে আওয়ামীলীগকে গোল দিতে দেয়া যাবে না।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, বরিশাল নাগরিক ফোরাম কিংবা জাতীয়তাবাদী নাগরিক পরিষদ যে নামেই চাঁন ও কামাল সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনে অংশগ্রহন করুক না কেন, বিগত নির্বাচনের ন্যায় এবারও বিএনপি এখানে একক প্রার্থী দিতে ব্যর্থ হয়েছে।

দু’টি কেন্দ্রে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট ॥

আগামী ১৫ জুন বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনে ৩০টি ওয়ার্ডের ১’শটি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে এবার দু’টি ভোট কেন্দ্রে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট গ্রহন করা হবে। বরিশাল সদর উপজেলা নির্বাচন অফিসার মোঃ সেলিম রেজা জানান, নগরীর ১৬ নং ওয়ার্ডের জিলা স্কুল ও কর্মাশিয়াল কলেজের দুটি ভোট কেন্দ্রে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট গ্রহন করা হবে। সে লক্ষ্যে ভোটারদের সচেতন করতে শীঘ্রই মাইকিং ও লিফলেট বিতরণ করা হবে। ওই ওয়ার্ডে মোট ভোটার সংখ্যা হচ্ছে ৪ হাজার ১৮১ জন। এরমধ্যে জিলা স্কুল কেন্দ্রে ভোট দেবেন ২ হাজার ৪৪৭ জন এবং কর্মাশিয়াল কলেজে কেন্দ্রে ভোট দেবেন ১ হাজার ৭৩৪ জন ভোটার।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »