আর্কাইভ

ঝালকাঠিতে ডাকাতি মামলার আসামী গ্রেফতার

গ্রামের এনায়েত খান তাপস (৩৪) নামের এক যুবককে গ্রেফতার করেছে। বৃহস্পতিবার তাকে আদালতে পাঠালে আদালত তাকে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন। শুক্রবার পুলিশ সুপার মো: শামসুদ্দিন ও তদন্তকারী কর্মকর্তা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এ সময় এলাকাবাসি ও স্বাক্ষীরা পুলিশের কাছে স্বাক্ষ্য দেন।

জানাগেছে, ঝালকাঠি সদর থানার নথুল্লাবাদ ইউনিয়নের নৈয়ারী গ্রামের বাসিন্দা ও নলছিটি সুবিদপুর ইসলামিয়া হাসানিয়া সিনিয়র মাদ্রাসার সহকারী অধ্যাপক মো: ইমামুল হক খানের বাড়িতে গত ৩০ এপ্রিল রাতে ১০/১১ জনের একটি ডাকাতদল আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে দরজা ভেংগে ঘরে ওঠে। এ সময় গৃহকর্তাকে বেধম মারপিট করে আহত করে এবং ঘরের লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। এসময় ডাকাতদেরকে চিনতে পারায় তার চক্ষু ও হাত-পা বেঁধে হত্যার উদ্দেশ্যে বাইরে নিয়ে যাবার চেষ্টা করে। এসময় পাশ্ববর্তী লোকজন এগিয়ে আসলে ডাকাতরা দ্রুত পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা তাকে আহত অবস্থায়  উদ্ধার করে ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে তাকে বরিশাল শেবাচিমে পাঠানো হলে তারা উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে পাঠান।

দীর্ঘদিন হাসপাতালে থেকে চিকিৎসা শেষে তিনি গত ১৫ মে বাদী হয়ে ঝালকাঠি সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে ৩ জন নামধারী ও অজ্ঞাত ৭/৮ জনের বিরুদ্ধে এমপি নং ১২০/১১  অভিযোগ দায়ের করেন। বিচারক আবু জাফর মো: নোমান সদর থানার ওসিকে মামলাটি এজাহারভুক্ত করার নির্দেশ দেন।  গত ১৮ মে মামলাটি এজাহারভুক্ত করে এবং তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই গোলাম মোস্তফা হাওলাদার আসামী তাপসকে তার বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে। এ মামলার অপর আসামীরা হল বিনয়কাঠি ইউনিয়নের সর্বহারা পার্টির কথিত কমান্ডার ফিরোজ হোসেন খান (৪৫) তার দু’ভাই সাখাওয়াত হোসেন খান স্বপন(৩৬)। এলাকার সন্ত্রাসী পরিবারটির বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের পর বিভিন্ন ভাবে বাদী, স্বাক্ষী ও তার পরিবারের লোকজনকে ভয়ভীতি দেখিয়ে আসছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে।

আরও পড়ুন

Back to top button