আর্কাইভ

যৌতুক দিতে না পারায় স্ত্রীকে তালাক দিয়েছে স্বামী

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ স্বামীর দাবিকৃত যৌতুকের টাকা পরিশোধ করতে না পারায় স্ত্রীকে ত্যাগ (তালাক) দেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় আদালতে মামলা দায়ের করা হলে পুলিশ স্বামী ও তার পিতাকে গ্রেফতার করেছে। ঘটনাটি ঘটেছে বরিবার সন্ধ্যায় বরিশালের উজিরপুর উপজেলার দক্ষিণ মাদার্শী গ্রামে। ওই গ্রামের মৃত আব্দুল খালেক বেপারীর কন্যা ও এক সন্তানের জননী মেরিনা আক্তার (২৭) জানান, ২০০৮ সনের ৭ জুলাই গৌরনদী উপজেলার বাটাজোর গ্রামের মন্নান সরদারের পুত্র শহিদুল ইসলামের সাথে সামাজিত ভাবে তার বিয়ে হয়। বিয়ের পর তাদের সংসাদের একটি কন্যা সন্তান জন্মগ্রহন করে।

মেরিনা আরো জানায়, বিয়ের পর থেকেই শহিদুল ও তার পরিবারের লোকজন ব্যবসার কথা বলে তার বাবার বাড়ি থেকে একলক্ষ টাকা যৌতুক আনার জন্য চাপ প্রয়োগ করে। এতে অস্বীকৃতি জানালে প্রায়ই তাকে শারিরিক নির্যাতন করা হয়। গত এক বছর পূর্বে অমানুষিক নির্যাতনের পর মেরিনাকে তার বাবার বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়া হয়।

দীর্ঘদিনেও স্বামী ও তার পরিবারের লোকজনে গৃহবধূ মেরিনার কোন খোঁজ খবর না নেয়ায় অসহায় মেরিনা বাদি হয়ে বরিশাল চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে স্বামী ও তার পরিবারের সদস্যদের আসামি করে নারী নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে গত ৪ অক্টোবর মেরিনার যৌতুকলোভী স্বামী শহিদুল তার স্ত্রীকে (মেরিনাকে) তালাক দেয়। সোমবার (৩০ অক্টোবর) দুপুরে শশুড়বাড়ির পাশদিয়ে মেরিনার কোল থেকে শহিদুল ও তার পিতা মান্নান সরদার দু’বছরের শিশু কন্যা জান্নাতকে ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্ঠা চালায়। এ সময় মেরিনার ডাকচিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে শহিদুল ও তার পিতাকে আটক করে। পরবর্তীতে আটককৃতদের উজিরপুর থানা পুলিশের কাছে সোর্পদ করা হয়।

আরও পড়ুন

Back to top button