আর্কাইভ

বরিশালে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের কয়েক দফা রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে ১০ জন আহত গ্রেফতার ৩

নিজস্ব সংবাদদাতা ॥ আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে বরিশাল নগরীর ভাটিখানা এলাকায় রবিবার রাতে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের মধ্যে দফায়-দফায় হামলা-পাল্টা হামলা ও সংঘর্ষে উভয়গ্রুপের কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছে। দু’গ্রুপের মধ্যে হামলা পাল্টা হামলার সময় প্রতিপক্ষের বাসভবনসহ ওই এলাকার তিনটি দোকান ও চারটি রিক্সা ভাংচুর করা হয়েছে। রাত সাড়ে ৯টা থেকে সাড়ে ১১টা পর্যন্ত দু’গ্রুপের প্রকাশ্য ধারালো অস্ত্র মহড়া, ইট পাটকেল নিক্ষেপ, ভাংচুর, ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় ভাটিখানাসহ গোটা কাউনিয়া এলাকায় চরম আতঙ্ক ছড়িয়ে পরেছিলো। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাঠিচার্জ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এসময় পুলিশ তিনজনকে  গ্রেফতার করেছে। এ নিয়ে সোমবারও ওই এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। পূর্ণরায় যেকোন সময় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা করছেন এলাকাবাসি।

পুলিশ, স্থানীয় ও আহত সূত্রে জানা গেছে, জেলা আ’লীগের প্রচার সম্পাদক সৈয়দ আনিচুর রহমানের পুত্র ও জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শামসুদ্দোহা আবিদ গ্র“পের সাথে দীর্ঘদিন থেকে সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ও মহানগর মহিলালীগের সাধারন সম্পাদক কহিনুর বেগমের পুত্র মহানগর ছাত্রলীগ নেতা আশরাফ আলি কলিন্স গ্র“পের বিরোধ চলে আসছিলো। এলাকার আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আবিদ ও কলিন্স গ্র“পের দীর্ঘদিনের দ্বন্ধ রবিবার রাতে প্রকাশ্য রূপ নেয়। রবিবার রাত সাড়ে নয়টার দিকে আবিদের সহযোগী আল-আমিন ও ছালেহকে পেয়ে কলিন্সের সহযোগীরা তাদের মারধর করে আহত করে। এ খবর আবিদ গ্র“পের মধ্যে ছড়িয়ে পরলে শুরু হয় তান্ডব। আবিদ ও তার গ্র“পের সহযোগীরা প্রকাশ্যে ধারালো অস্ত্র প্রদর্শন করে প্রথম দফায় কলিন্স বাহিনীর ওপর হামলা চালায়। এসময় কলিন্স ও তার সহযোগীরা দৌড়ে পালিয়ে আশ্রয় নেয় স্থানীয় রিপনের চায়ের দোকানে। ওই দোকানে হামলা চালিয়ে দোকানঘর ভাংচুরসহ কলিন্সের সহযোগী রুবেলকে এলোপাথারি ভাবে কুপিয়ে আহত করা হয়। দ্বিতীয় দফায় কলিন্স ও তার সহযোগীরা সংঘবদ্ধ হয়ে ধারালো অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায় আবিদ গ্র“পের ওপর। সে সময় কলিন্স গ্র“পের লোকজন আবিদের বাসভবনসহ তিনটি দোকান ও চারটি রিক্সা ভাংচুর করে। হামলা ও পাল্টা হামলায় উভয়গ্র“পের কাউনিয়া ব্রাঞ্চ রোডের রাকিব, চন্দ্রপারা প্রথম গলির আসিক, ভাটিখানা বাজার সংলগ্ন এলাকার দীপ্ত, ব্রাঞ্চ রোডের আকিব, আমানতগঞ্জ ভাটিখানা এলাকার আল-আমিন, ছালেহ, রাকিব, জুয়েল, সায়েম, আশিক আহত হয়।

ছাত্রলীগ নেতা সৈয়দ আশরাফ আলি কলিন্স জানান, আবিদসহ তার গ্র“পের ক্যাডাররা ধারালো অস্ত্র প্রদর্শন করে প্রথমে তাদের ওপর অতর্কিত ভাবে হামলা চালায়। হামলায় তার ৬ জন সমর্থক আহত হয়েছে। তাদের মধ্যে রাকিব ও আকিবকে শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শামছুদ্দোহা আবিদ জানান, তার দু’জন সমর্থককে কলিন্স গ্রুপের ক্যাডাররা মারধর করে আহত করেছে। পরবর্তীতে ওই ক্যাডাররা তাদের বাসভবনেও হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে। তিনি আরো জানান, এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। কাউনিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি রফিকুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন। ঘটনার সাথে জড়িত হামলাকারী রাজিব হোসেন দিপু, আহম্মেদ হাসান রুবেল ও আশিক বসুকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলেও ওসি উল্লেখ করেন। গ্রেফতারকৃত তিনজনই কলিন্সের সমর্থক।

আরও পড়ুন

মন্তব্য করুন

Back to top button
Translate »