আর্কাইভ

ঔষধ বিক্রির আড়ালে শেবাচিমের সামনে আহসান ব্রাদার্সে চলছে রমরমা প্যাথেডিন ব্যাবসা

বরিশাল সংবাদদাতা ॥ নগরীর শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এলাকায় র‌্যাব-পুলিশের চোখ ফাকি দিয়ে বেশ কয়েকজন অসাধু ফার্মেসী মালিক প্যাথেডিন নামেক মরন নেশার রমরমা ব্যাবসা চালিয়ে আসছে। নগরীর মাদকাসক্ত যুবকরা সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ঐ এলাকায় মাদকাসক্তদের আনাগোনা বেড়ে যায়। মেডিকেল এলাকার আহসান ব্রাদার্স নামের ফার্মেসী এ ব্যবসার আড়ালে বিক্রি করছে প্যাথেডিন। আর দিন দিন যুবসমাজ ঝুকছে মরন নেশা এই প্যাথেডিনের দিকে।

স্থানীয়দের অভিযোগে জানাগেছে, আহসান ব্রাদার্সের মালিক দীর্ঘদিন যাবত এ ব্যবসা করে আসলেও সেদিকে নজরদারী নেই প্রশাসনের। আহসান ব্রাদার্স থেকে মেডিকেলের রোগীর স্বজন ঔষধ ক্রয়করে প্রতারিত হচ্ছে প্রতিনিয়ত। চিকিৎসক স্কয়ার কোম্পানীর ঔষধ লিখলে তারা রোগীর স্বজনকে ধরিয়ে দিচ্ছে অক্ষ্যাত কোম্পানীর নিন্মমানের ঔষধ। পরে ঐ ঔষধ চিকিৎসক পাল্টে আনার জন্য বল্লে বিপাকে পরে রোগীর স্বজনরা। তারা ঔ ফার্মেসীতে গেলেই আহসান ব্রাদার্সের মালিক লাঞ্চিত করছে ক্রেতাকে। রোগীর স্বজন ঐ ফার্মেসীতে ঔষধ পাল্টাতে গেলে ফার্মেসী মালিক সাফ বলে দেয় এ ঔষধ তার দোকানের নয়। ফলে বিপাকে পড়তে হচ্ছে রোগীর স্বজনদের। এ নিয়ে কোন ক্রেতা বাকবিতন্ডায় লিপ্ত হলেই মাদকসেবীরা এগিয়ে এসে লাঞ্চিত করে রোগীর স্বজনকে। আহসান ব্রাদার্সের সামনে কিছুসময় অপেক্ষা করলেই প্রত্যক্ষ করা যাবে এধরনের ঘটনা। আর প্যাথেডিন ব্যবসার সুবাদে মাদকাসক্ত বখাটেরা থাকছে তার হাতের নাগালে। প্রতারিত রোগীর স্বজন গোলাম রব্বানী বলেন গত বুধবার আহসান ব্রাদার্স থেকে লিব্রা কোম্পানীর হার্টসল প্লাস নামের স্যালাইন ও এ্যার্ন্ট্রবিায়োটিক ইনজেক্সন ক্রয়করে তা ব্যবহার না করার পর ফেরত দেয়ার জন্য গেলে আহসান ব্রাদার্সের মালিক বলে তাদের বিক্রিত ঔষধের গায়ে তারা স্বাক্ষর করে বিক্রিকরে থাকেন । সেহেতু ঐ ঔষধ তার দোকানের না। এনিয়ে উভয়ের মধ্যে বাকবিতন্ডা হয়। একপর্যায়ে কাছাকাছি অবস্থানকরা দুই প্যাথেডিন আসক্ত যুবক এসে ফার্মেসী মালিকের পক্ষনিয়ে ক্রেতাকে লাঞ্চিত করতে উদ্যাত হয়। এসময় পার্শ্ববর্তী ফামেসী মালিক এগিয়ে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে এবং ঔষধ ফেরত নেয়ার জন্য অনুরোধকরে। আহসান ব্রাদার্সের মালিক তাও মানতে নারাজ। তার সাফকথা সে কখন কি বিক্রিকরে তা নিয়ে পরে বসে থাকেনা। ক্রেতা নিরুপায় হয়ে ঔষধ নিয়ে ফিরে আসতে বাধ্যহয়। এধরনের ঘটনা ঐ ফার্মেসীতে প্রতিনিয়ত ঘটলেও দুর দুরন্ত থেকে আসা রোগীর স্বজনরা মুখবুঝে মেনে নিচ্ছেন। ফার্মেসী ব্যবসার আড়ালে মাদক ব্যাসায়ীদের এহন কর্মকান্ড দেখার কেউনেই বলে মন্তব্য খোদ অপর এক ফার্মেসী মালিকের।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ফার্মেসী মালিক জানান আহসান ব্রাদার্স’র প্যাথেডিন ব্যবসা বন্ধের জন্য তাকে বারবার সতর্ক করা হলেও তা মানছেন না তিনি। এবিষয়ে ঐ এলাকার ব্যাবসায়ী ও সাধারন মানুষ র‌্যাব ও পুলিশের দ্রুত হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

আরও পড়ুন

Back to top button
Translate »