গৌরনদী সংবাদ

পুত্র হত্যার বিচার দেখে যেতে পারলেন না বুলেটের পিতা

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে অনুপ্রানিত হয়ে সাবেক চীফ হুইপ ও বর্তমান বরিশাল-১ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহকে ভালবেসে ছাত্রলীগের রাজনীতির সাথে সক্রিয়ভাবে যুক্ত হওয়াটাই ছিলো ছাত্রলীগ নেতা সফিকুল ইসলাম বুলেটের অপরাধ।

যে কারণে ২০০১ সালের নির্বাচন পরবর্তী সময়ে স্থানীয় বিএনপি-জামায়াতের চারদলীয় জোট সন্ত্রাসীদের হামলায় প্রাণ দিতে হয়েছে সরকারী গৌরনদী কলেজ ছাত্রলীগের প্রচার সম্পাদক সফিকুল ইসলাম বুলেটকে।

দীর্ঘদিন পুত্রের চিহ্নিত হত্যাকারীদের গ্রেফতারপূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে প্রশাসনের দ্বারে দ্বারে ঘুরে ব্যর্থ হয়েছেন শহীদ বুলেটের পিতা অবসরপ্রাপ্ত স্কুল শিক্ষক মোঃ রহমত উল্লাহ খলিফা। পুত্রের চিহ্নিত হত্যাকারীদের বিচার না পেয়ে সম্প্রতি হৃদরোগে আক্রান্ত হন তিনি।

অবশেষে বৃহস্পতিবার সকালে মোঃ রহমত উল্লাহ খলিফা (৭০) হরিসেনা গ্রামের নিজবাড়িতে ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তিনি স্ত্রী, ৩ পুত্র, ১ কন্যা রেখে গেছেন। বিকেলে মরহুমের জানাজা শেষে পারিবারিক গোরস্তানে দাফন করা হয়।

রহমত উল্লাহ খলিফার পুত্র মাসুম বিল্লাহ মানিক গৌরনদী পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক।

ছাত্রলীগ নেতার পিতার মৃত্যুতে আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ-এমপি, এ্যাডভোকেট তালুকদার মোঃ ইউনুস-এমপি, অগ্রণী ব্যাংকের পরিচালক এ্যাডভোকেট বলরাম পোদ্দার, পৌর মেয়র ও উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ হারিছুর রহমান, উপজেলা আ’লীগের সভাপতি এইচ.এম জয়নাল আবেদীন, সাবেক সভাপতি কালিয়া দমন গুহ, পৌর আ’লীগের সভাপতি মিয়া গোলাম মনির, ইউপি চেয়ারম্যান সৈকত গুহ পিকলু, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ফরহাদ মুন্সী, পৌর কাউন্সিলর নুরে আলম বাবুল খান, সাবিনা খন্দকার, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মোঃ সাহাবুল খান, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সৈয়দ মাহবুব আলম, সাধারণ সম্পাদক মোঃ নয়ন শরীফ, পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি নজরুল ইসলাম মিয়া, সরকারি গৌরনদী কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জুবায়ের ইসলাম সান্টু ভূঁইয়া, ছাত্রলীগ নেতা মামুন মিয়া, ইমরাত খান, কাজল হাওলাদার, সুমন মাহমুদ, ইমরান মিয়া, বি.এম সাইদুর রহমান সুজন, দীপঙ্কর ভট্টাচার্য রানাসহ আ’লীগ ও তার সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।

আরও সংবাদ...

Leave a Reply

Back to top button