বরিশাল

দখিনের জেলেদের জালে ধরা পরছে ঝাঁকে ঝাঁকে রুপালী ইলিশ

রুপালি ইলিশের ঘ্রানে বরিশালের জিয়া মৎস্য অবতারন কেন্দ্রে এখন প্রান চাঞ্চল্য ফিরে পেয়েছে। দীর্ঘ আকালের পর মৌসুমের শেষভাগে বরিশালের জেলেদের জালে ঝাঁকে ঝাঁকে রুপালী ইলিশ ধরা পড়ায় বরিশালসহ গোটা দক্ষিণাঞ্চলের প্রায় দু’লাখ জেলে পরিবারের মাঝে এখন বইছে খুশীর বন্যা। দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর কাঙ্খিত রুপালী ইলিশ ধরা পড়ায় হাসি ফুটে উঠেছে আড়ৎদারদের মুখেও। কর্মচাঞ্চল্যে প্রাণ ফিরে পেয়েছে বিভাগের প্রতিটি মৎস্য আড়ৎ।

মৎস্য ব্যবসায়ীরা জানান, ইলিশ মৌসুমে দীর্ঘ খড়ার পর গভীর সাগরে গত তিনদিন থেকে জেলেদের জালে ঝাঁকে ঝাঁকে রুপালী ইলিশ ধরা পরছে। গভীর সমুদ্র থেকে আড়ৎগুলোতে ফিরে এসে প্রতিদিন প্রতিমন ইলিশ ১৫ থেকে ২৫ হাজার টাকা দরে প্রতিটি ট্রলারে ৫ থেকে ৮ লাখ টাকার পর্যন্ত ইলিশ বিক্রি করা হচ্ছে। মৎস্য আড়ৎগুলো থেকে ইলিশ সংগ্রহ করে রপ্তানী কারকরা ট্রাকে ও পিকআপে করে দেশের বিভিন্নস্থানে বাজারজাত করছেন।

কলাপাড়ার আলীপুর মৎস্য আড়ৎদার সমিতির সভাপতি আনসার আলী মোল্লা বলেন, ইলিশ না থাকলে আমাদের বন্দরের আর প্রাণ থাকেনা। ইলিশ থাকলে সারারাত জেগে থাকলেও আমাদের ক্লান্তি আসেনা। তিনি আরো বলেন, গত তিনদিন থেকে প্রতিটি ট্রলার মাছ নিয়ে ঘাটে ফিরছে।

মৎস্য আড়ৎদার আব্বাস কাজী জানান, গত তিনদিনে মৎস্য আড়ৎগুলোতে প্রায় ২ থেকে ৩ কোটি টাকার ইলিশ বেচা-কেনা হয়েছে। মৎস্য আড়ৎদার নিজাম শেখ বলেন, এভাবে সাগরে একমাস মাছ ধরা পরলে মৌসুমের শুরু থেকে এ পর্যন্ত যে লোকসান গুনতে হয়েছে তা উঠেও লাভের মুখ দেখতে পাবেন তারা। রুপালী ইলিশের ঘ্রানে শুধু আলীপুর কিংবা মহীপুর মৎস্য বন্দরই নয়, বরিশাল জিয়া মৎসঅবতারন কেন্দ্রসহ বিভাগের সকল মৎস্য আড়ৎগুলো ক্রমেই জমে উঠতে শুরু করেছে।

ট্রলার মালিক আল-আমিন জানান, এ মৌসুমে অনেক টাকা লোকসান দিয়েছি। অবশেষে গত তিনদিন থেকে মাছের গন্ধ পেতে শুরু করেছি। পাথরঘাটা মৎস্য অবতরন কেন্দ্রের ব্যবস্থাপক সোলায়মান শেখ বলেন, গত তিনদিনের প্রতিদিন গড়ে ৩৬ থেকে ৪০ টন ইলিশ মাছ বিকিনিকি হয়েছে।

বরিশাল নগরীর পোর্ট রোড ইলিশ মোকামের কর্মচারী মোঃ রানা বলেন, জেলেদের জালে মাছ ওঠার জন্য তারা দোয়া ও মোনাজাত করেছেন। পোর্ট রোডের মাছ ব্যবসায়ীরা জানান, গত বছর এই সময় প্রতিদিন ঘাটে ২ থেকে ৩ হাজার মন ইলিশ মাছ বিকিনিকি হতো। কিন্তু চলতি ইলিশ মৌসুমে এ যাবৎ সর্বোচ্চ দুই’শ মন মাছ উঠেছে। তাও গত তিনদিন থেকে। এর আগে পুরো ইলিশ মৌসুমেই তাদের অলস সময় কাটাতে হয়েছে।


ফেসবুকে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। Gournadi.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে Gournadi.com কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

Tags

আরো পোষ্ট...