গৌরনদী সংবাদ

যৌতুকের জন্য অমানবিক নির্যাতন, মামলা গ্রহন, স্বামী গ্রেপ্তার

দাবি করা যৌতুকের টাকা না এনে দেওয়ায় বরিশালের গৌরনদী উপজেলায় এক অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূর ওপর অমানবিক নির্যাতনের ঘটনায় অবশেষে শনিবার নির্যাতিত গৃহবধূর মামলা রুজু করেছে পুলিশ। একই দিনে নির্যাতিতার বিরুদ্ধে করা জিডি প্রত্যাহারসহ নির্যাতনকারী স্বামীকে গ্রেপ্তার করে রবিবার বরিশাল জেল হাজতে প্রেরন করেছে।

যৌতুকের দাবিকৃত টাকা এনে না দেওয়ায় বিভিন্ন সময় গৌরনদী উপজেলার বোরাদী গরঙ্গল গ্রামের গৃহবধূ গৃহবধূ সেলিনার ওপর নির্মম নির্যাতন চালায় স্বামী আনোয়ার খান ও শ্বশুর দুলাল খান। সর্বশেষ ৫০ হাজার টাকার দাবিতে গত ১৭ মে গৃহবধূ সেলিনার উপর নির্যাতন করে গর্ভের সন্তান নষ্ট করে দেয় ( গর্ভপাত) এবং অসুস্থ্য অবস্থায় চিকিৎসা না দিয়ে ৭দিন ঘরের মধ্যে আটকে রাখেন। স্থানীয়রা জানতে পেরে গত ২৪ মে মূমূর্ষ অবস্থায় সেলিনাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

ওই দিন (২৪ মে) নির্যাতিতা সেলিনা বাদি হয়ে স্বামী আনোয়ার খান ও শ্বশুর দুলাল খানকে আসামি করে গৌরনদী মডেল থানায় মামলা দায়েরের জন্য এজাহার দাখিল করেন। পুলিশ সেই মামলা রুজু না করে বরং নির্যাতনকারী স্বামী আনোয়ার খান অভিযোগ নথিভূক্ত (জিডি) করেন। (গত ২৪ মে নির্যাতনকারী স্বামী আনোয়ার খানের জিডিতে বলা হয়, তার স্ত্রী সেলিনা বেগম পরিবারের সকলের অজান্তে নগত টাকা ও স্বর্নালংকারসহ মূল্যবান মালামাল লুট করে নিয়ে পালিয়ে গেছে)।

এ নিয়ে পত্রিকায় একাধিক প্রতিবেদন প্রকাশের পর অবশেষ গত শনিবার গৌরনদী মডেল থানা পুলিশ নির্যাতিতার দাখিলকৃত অভিযোগ মামলা হিসেবে রুজু করেন। একই দিন পুলিশ নির্যাতিতা সেলিনার বিরুদ্ধে স্বামীর করা মিথ্যা জিডি প্রত্যাহার করেন এবং স্বামী আনোয়ার হোসেনকে গ্রেপ্তার করেন। বরিশাল জেল হাজতে প্রেরন করেছে।

গৌরনদী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আলাউদ্দিন মিলন এ প্রসঙ্গে বলেন, স্বামী পরিচয় গোপন করে জিডি করায় জিডি গ্রহন করা হয়েছিল এবং নির্যাতিতার এজাহার অসমাপ্ত থাকায় সংশোধন করে মামলা রুজু করে আসামি গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

আরও সংবাদ...

Leave a Reply

Back to top button