গৌরনদী সংবাদ

ডিলারের গাফলতিতে বঞ্চিত বার্থীর ১হাজার হতদরিদ্র

বরিশালের গৌরনদী উপজেলায় ইউনিয়ন পর্যায়ে হতদরিদ্রদের জন্য সরকার নির্ধারিত দশ টাকা মূল্যে খাদ্যশস্য বিতরন কর্মসূচী ২০১৬র বার্থী ইউনিয়নের ডিলারের গাফলতির কারনে অক্টোবর ২০১৬ মাসের চাল থেকে বঞ্চিত হলেন ইউনিয়নের এক হাজার হতদরিদ্র কার্ডপ্রাপ্ত সুবিধাভোগী। তাদের অভিযোগ, ডিলারের খামখেয়ালিপনা ও গাফলতির কারনে তারা অক্টোবর মাসের চাল পাননি।

সংশ্লিষ্টরা জানান, দেশের খাদ্য নিরাপত্তা ও পুষ্টি নিশ্চিতকল্পে সরকারি বিতরন ব্যবস্থার আওতায় পল্লি অঞ্চলের হতদরিদ্র মানুষকে স্বল্পমূল্যে খাদ্য সহায়তা দেওয়ার জন্য সরকার ইউনিয়ন পর্যায়ে হতদরিদ্রদের জন্য সরকার নির্ধারিত মূল্যে কার্ডের মাধ্যমে খাদ্যশস্য বিতরন কার্যক্রম শুরু করেন।

গৌরনদী উপজেলা খাদ্য অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা জানান, গৌরনদী উপজেলার  ৭টি ইউনিয়নে ১০ হাজার ৪শত ৪৯ জন হতদরিদ্রের সুবিধাভোগী রয়েছে।

উপজেলার বার্থী ইউনিয়নে উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক কমিটির সদস্য আব্দুল আজিজ বেপারীকে ডিলার নিয়োগ করা হয়। শুরু থেকেই তার বিরুদ্ধে কালো বাজারে বিক্রি ও মাপে কম দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এবারে তার বিরুদ্ধে অভিযোগ, অক্টোবর মাসের চাল উত্তোলন ও চাল বিক্রি করেন নাই । ফলে তার অধীনে থাকা এ কর্মসূচীর আওতায় এক হাজার হতদরিদ্র কার্ডধারী সুবিধাভোগী অক্টোবর মাসের চাল থেকে বঞ্চিত হয়েছেন।

উপজেলা খাদ্য অধীদপ্তরের কর্মকর্তারা জানান, অক্টোবর মাসে গৌরনদী উপজেলার ১৩টি ডিলার ট্রেজারী চালান জমা দিয়ে চাল উত্তোলন করেন কিন্তু বার্থী ইউনিয়নের ডিলার আব্দুল আজিজ বেপারীর থামখেয়ালীপনা ও গাফলতির কারনে ইউনিয়নের এক হাজার হতদরদ্রি সুবিধাভোগী চাল থেকে বঞ্চিত হয়েছেন।

খাদ্য পরিদর্শক অশোক কুমার চৌধুরী জানান, ডিলার আব্দুল আজিজকে একাধিকবার তাগিদ দেওয়া সত্বেও তিনি ট্রেজারী চালান জমা দিয়ে ডিও ইস্যু করাননি।

উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা এ,বি সফিকুল ইসলাম জানান, চাল উত্তোলন ও বিক্রি না করার অপরাধে গত ২৯ অক্টোবর ডিলার আব্দুল আজিজ বেপারী শোকজ করে ৫ কর্ম দিবসের মধ্যে জবাব দিতে বলা হয়েছে। শোকজে বলা হয়, আপনার গাফলতির কারেন হতদরিদ্ররা অক্টোবর মাসের চাল থেকে বঞ্চিত হয়েছে। কেন কি কারনে খাদ্যশষ্য উত্তোলন ও বিক্রি করেননি। এহেন অপরাধে আপনার বিরুদ্ধে কেন নীতিমালা মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে না।

বার্থী ইউনিয়নে ডিলার ও উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক কমিটির সদস্য আব্দুল আজিজ বেপারীর কাছে অভিযোগ সম্পর্কে জানতে চাইলে লিখিত শোকজ পাওয়ার কথা স্বীকার করে তিনি বলেন, তালিকায় ঘাপলা থাকায় সংশোধনী চেয়েছি তা না পাওয়ায় চাল উত্তোলন ও বিক্রি করা হয়নি।

কর্মসূচীর উপজেলা কমিটির সভাপতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউ,এন,ও) মো. মাহবুব আলম চাল না পাওয়ার সত্যতার কথা স্বীকার করে বলেন, ডিলারকে শোকজ করা হয়েছে। জবাব পাওয়ার পরেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


ফেসবুকে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। Gournadi.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে Gournadi.com কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো পোষ্ট...

Leave a Reply