বরিশাল

মাদকসেবনকারীকে ছেড়ে না দেওয়ায় আগৈলঝাড়া ইউএনও অফিসে হামলা, ভাংচুর

এক মাদকসেবনকারীকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে সাজা দেয়াকে কেন্দ্র করে বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সাথে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি কামরুজ্জামান আজাদ সেরনিয়াবাদের বাকবিতান্ডা হয়। এ নিয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার দেবী চন্দ ছাত্রলীগ নেতা কামরুজ্জামান আজাদ সেরনিয়াবাদকে অসৌজন্যমূলক আচারন করেন।

এর জের ধরে রবিবার বিকেলে ক্ষমতাসীন দলের কয়েক’শ নেতাকর্মী ইউএনও’র অপসারনের দাবি করে বিক্ষোভ মিছিলসহ উপজেলা কার্যালয়ে হামলা চালিয়ে বাঙচুর করে। এ সময় হামলাকারীরা অফিসের দরজা-জানালা ব্যাপক ভাঙচুর করে।

হামলার সময় ইউএনও অফিসের বাইরে ছিলেন। সন্ধ্যায় এক প্রতিবাদ সভায় বক্তারা আগামি ২৪ ঘন্টার মধ্যে ইউএনওকে অপসারন আল্টিমেটাম দেন। এ নিয়ে গোটা উপজেলা সদরে উত্তেজনা বিরাজ করছে। গুরুত্বপূন পয়েন্টে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে।

আগৈলঝাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার দেবী চন্দ জানান, গতকাল দুপুরে থানা পুলিশ গাঁজা সহ নজরুল সেরনিয়াবাদ নামে এক মাদকসেবনকারীকে বিচারের জন্য তার আদালতে নিয়ে আসেন। এ সময় উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি কামরুজ্জামান আজাদ সেরনিয়াবাদ তার দপ্তরে প্রবেশ করে নজরুলকে সাজা না দেয়ার জন্য বলে। এ নিয়ে আজাদের সাথে তার (ইউএনও’র) সাথে বাকবিতান্ডা হয়। এক পর্যায়ে আজাদকে তার দপ্তর থেকে বের করে দেয়া হয়। পরে ইউএনও বাগধা ইউনিয়ন পরিষদে এ সভায় যোগ দিতে সেখানে যান।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিকেল ৫টার দিকে যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও তার সহযোগী সংগঠনের দুই থেকে তিনশত নেতাকর্মী উপজেলা নির্বাহী অফিসার দেবী চন্দ’র অপসারনের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল বের করেন। বিক্ষোভ মিছিল সহকারে ইউএনও অফিস ঘেরাও করে ইট-পাটকেল নিক্ষেভ করে। ইট-পাটকেল নিক্ষেভে অফিসের দরজা-জানালা গ্লাস ভেঙ্গে যায়। পরবর্তীতে বিক্ষুব্ধরা উপজেলা দলীয় কার্যালয়ের সম্মুখে প্রতিবাদ সভার আয়োজন করেন।

সভায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা যুবলীগের সহ সম্পাদক বজলুর হক হাওলাদার, উপজেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি লিটন সেরনিয়াবাদ প্রমুখ। বক্তারা আগামি ২৪ ঘন্টার মধ্যে ইউএনওকে অপসারনের জন্য প্রশাসনের কাছে দাবি জানান। ২৪ ঘন্টার মধ্যে ইউএনওকে অপসারন করা না হলে লাগাতার কর্মসুচি ঘোষনা করা হবে বলে জানান।

হামলা ও ভাঙচুরের অভিযোগ অস্বীকার করে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি কামরুজ্জামান আজাদ সেরনিয়াবাদ বলেন, ‘ইউএনও আমার সাথে খারাপ ব্যবহার করেছেন। এ খবর পেয়ে আমার দলের নেতা-কর্মীরা ইউএনও’র অপসারনের দাবিতে বিক্ষোভ করেছেন।’ আগৈলঝাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো.সাজ্জাদ হোসেন এ প্রসঙ্গে বলেন, পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখার জন্য উপজেলা সদরের বিভিন্ন পয়েন্টে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে।

খবর : গিয়াস উদ্দিন মিয়া


ফেসবুকে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। Gournadi.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে Gournadi.com কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো পোষ্ট...

Leave a Reply