আন্তর্জাতিকজাতীয়

পাকিস্তানকে কড়া প্রতিবাদ জানাল বাংলাদেশ

মানবতাবিরোধী অপরাধে জামায়াত নেতা নিজামীর ফাঁসি কার্যকর নিয়ে পাকিস্তান বিব্রতকর বিবৃতি ও দেশটির পার্লামেন্টে নিন্দা প্রস্তাব পাশ করার ঘটনায় কড়া প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ।

বৃহস্পতিবার দেশটির হাই কমিশনার সুজা আলমকে ডেকে কড়া প্রতিবাদ জানানো হয়। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা বলা হয়েছে। গত এক সপ্তাহে দুইবার পাকিস্তানি রাষ্ট্রদূতকে তলব করে নিন্দা জানাল বাংলাদেশ।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সুজা আলম পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দ্বিপক্ষীয় সচিব ও কনস্যুলার মিজানুর রহমানের সঙ্গে দেখা করেন। সে সময় পাকিস্তানের আচরণের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে একটি কূটনৈতিক পত্র তুলে দেওয়া হয়।

এদিকে ১২ মে সকাল সাড়ে ১১টায় পাকিস্তানে বাংলাদেশের ভারপ্রাপ্ত হাইকমিশনার নাজমুল হুদাকে তলব করে যুদ্ধাপরাধী মতিউর রহমান নিজামীর ফাঁসির রায় কার্যকরের পর পাকিস্তানের সংসদে যে শোক প্রস্তাব উঠেছে এবং তাদের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় যে শোক বিবৃতি দিয়েছে সে অবস্থানে ‘অনড়’ থাকার কথা জানিয়েছে ইসলামাবাদ। জবাবে ভারপ্রাপ্ত হাইকমিশনারও যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের ব্যাপারে বাংলাদেশের অনড় অবস্থানের কথা জানিয়ে দেন পাকিস্তানকে।

তবে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে বের হয়ে পাকিস্তানি হাই কমিশনার জানান, যুদ্ধাপরাধ ইস্যু বাংলাদেশ পাকিস্তান সম্পর্কে প্রভাব ফেলবে না।

এর আগে ১০ মে মঙ্গলবার দিনগত রাত ১২টা ১০ মিনিটে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে শীর্ষ যুদ্ধাপরাধী জামায়াতের আমির নিজামীর ফাঁসির রায় কর্যকর করা হয়।

একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে বুদ্ধিজীবী হত্যাকাণ্ড এবং হত্যা-গণহত্যা ও ধর্ষণসহ সুপিরিয়র রেসপন্সিবিলিটির (ঊর্ধ্বতন নেতৃত্ব) দায়ে ফাঁসির দড়িতে ঝুলতে হয়েছে পাকিস্তানি বাহিনীর সহযোগী জামায়াতের কিলিং স্কোয়াড আলবদর বাহিনীর সর্বোচ্চ নেতা নিজামীকে।

এর পরেই বাংলাদেশের বিচার ব্যবস্থাকে কটাক্ষ করে এবং নিজামীর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করে বিবৃতি দেয় দেশটি।

ফাঁসি কার্যকর হওয়া পর ১১ মে বুধবার পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত ওই বিবৃতিতে বলা হয়, ‘১৯৭১ সালের কথিত অপরাধের দায়ে বাংলাদেশে জামায়াত ইসলামির আমির মতিউর রহমান নিজামীর ফাঁসি কর্যকর করায় পাকিস্তান গভীরভাবে শোকাহত। পাকিস্তানের সংবিধান ও আইনের প্রতি সমর্থনই ছিলো তার একমাত্র অপরাধ’।

বাংলাদেশে ত্রুটিপূর্ণ বিচারের মাধ্যমে নেতাদের হত্যা করে বিরোধীদলকে দমন করা হচ্ছে অভিযোগ এনে দীর্ঘদিন সামরিক শাসনাধীন থাকা পাকিস্তান বলছে- ‘এটা সম্পূর্ণভাবে গণতন্ত্রের চেতনা বিরোধী’।

বিবৃতিতে পাকিস্তান আরও বলছে, ‘বাংলাদেশের যেসব মানুষ সংসদে তাদের প্রতিনিধি হিসেবে নিজামীকে নির্বাচিত করেছিলো, এ মৃত্যুদণ্ড তাদের জন্যও দুর্ভাগ্যজনক’।

এর আগেও নিজামীর বিচারের বিপক্ষে অবস্থান নিয়ে গত ৬ মে বিবৃতি দেয় দেশটিরপররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। এ ঘটনায়  ৯ মে সোমবার দুপুরে ঢাকায় পাকিস্তানের হাইকমিশনার সুজা আলমকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব করে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে এই প্রতিবাদ জানানো হয়।


ফেসবুকে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। Gournadi.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে Gournadi.com কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো পোষ্ট...

Leave a Reply